স্মার্টফোনসহ কিছু চীনা পণ্যে শুল্ক্কারোপে বিলম্ব

প্রকাশ: ১৫ আগস্ট ২০১৯

শিল্প ও বাণিজ্য ডেস্ক

চীনে তৈরি স্মার্টফোন, ল্যাপটপ, ভিডিও গেমসসহ বিভিন্ন ধরনের খেলনা, কম্পিউটারের মনিটর, কয়েক ধরনের জুতা ও কাপড়ের ওপর অতিরিক্ত শুল্ক্কারোপের ঘোষণা পিছিয়ে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এসব পণ্য আমদানিতে আগামী ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়তি শুল্ক্ক দেওয়া লাগবে না বলে জানিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন।

চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের চলমান বাণিজ্যযুদ্ধের মধ্যে এ ঘোষণা কিছুটা হলেও স্বস্তি তৈরি করেছে উভয় দেশের রফতানিকারক ও আমদানিকারকদের মধ্যে। স্বাস্থ্য, নিরাপত্তা, জাতীয় নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন কারণে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য দপ্তর ইউএসটিআর আপাতত এসব পণ্যে শুল্ক্ক আরোপ থেকে সরে এসেছে। বিবিসি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে অতিরিক্ত শুল্ক্ক আরোপে বিলম্বের এ খবর জানানো হয়েছে।

অন্যান্য পণ্যে বাড়তি ১০ শতাংশ শুল্ক্কারোপ আগের ঘোষণা অনুযায়ী ১ সেপ্টেম্বর থেকে কার্যকর হবে। এ খবরে শেয়ারবাজারে বিভিন্ন কোম্পানির শেয়ারদর অনেক বেড়েছে।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানান, বড়দিনের আগে মার্কিন ক্রেতাদের ওপর যাতে বাড়তি কোনো করের বোঝা না পড়ে, সে জন্যই শুল্ক্কারোপের ক্ষেত্রে এ বিলম্ব করা হচ্ছে।

এর আগে ১ আগস্ট ৩০০ বিলিয়ন ডলারের চীনা পণ্য আমদানিতে ১০ শতাংশ হারে শুল্ক্ক আরোপের ঘোষণা দিয়েছিলেন ট্রাম্প। এটি কার্যকর হওয়ার কথা ১ সেপ্টেম্বর থেকে। তবে বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে কয়েকটি চীনা পণ্যে এ সময় থেকে বাড়তি শুল্ক্ক আরোপ করছে না দেশটির বাণিজ্য দপ্তর।

চলমান বাণিজ্যযুদ্ধ নিয়ে আলোচনার মধ্যে ১ আগস্ট আরও চীনা পণ্য আমদানিতে নতুন করে ১০ শতাংশ শুল্ক্ক আরোপের ঘোষণা দেয় যুক্তরাষ্ট্র। এ সিদ্ধান্তের জবাব দেওয়ার হুমকি দিয়েছে চীন। এর কয়েক দিন পর মার্কিন ডলারের বিপরীতে চীনের মুদ্রা ইউয়ানের অবমূল্যায়ন করে দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির দেশটি। পরে অবশ্য চীন দাবি করে, যুক্তরাষ্ট্রের ওপর প্রতিশোধ নিতে এটি করা হয়নি। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্র বলছে, চীন সরকারের হস্তক্ষেপেই এ দর কমানো হয়েছে। মঙ্গলবার ট্রাম্পের নতুন ঘোষণায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে কিছুটা স্বস্তি ফিরে এসেছে। এরপর থেকে শেয়ারবাজারে প্রযুক্তিপণ্যের শেয়ারের দর বাড়তে শুরু করে। ওয়াল স্ট্রিটের প্রধান তিনটি সূচক এক পর্যায়ে প্রায় ২ শতাংশ বাড়ে। তবে দিনশেষে ডাও জোন্স ও এসঅ্যান্ডপি ৫০০ সূচক বেড়েছে ১ দশমিক ৪ শতাংশ। অন্যদিকে, প্রযুক্তিনির্ভর নাসডাক সূচক বেড়েছে প্রায় ১ দশমিক ৯ শতাংশ।