জাপানি বিনিয়োগকারীদের চমৎকার গন্তব্য বাংলাদেশ

প্রকাশ: ২২ অক্টোবর ২০২০

সমকাল প্রতিবেদক

বাংলাদেশ এখন জাপানি বিনিয়োগকারীদের জন্য চমৎকার গন্তব্য। বাংলাদেশে জাপানের বিনিয়োগকারীদের জন্য যে অর্থনৈতিক অঞ্চল হচ্ছে, তা এশিয়ার মধ্যে শ্রেষ্ঠ হতে পারে। তাদের বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে সরকার যথাযথ সহযোগিতা দেবে।

বুধবার দ্য হংকং অ্যান্ড সাংহাই ব্যাংকিং করপোরেশন, বাংলাদেশ (এইচএসবিসি) ও জাপান এক্সটার্নাল ট্রেড অর্গানাইজেশন (জেট্রো) যৌথভাবে 'বাংলাদেশ-জাপান ব্যবসায়িক করিডর :অংশীদার সংলাপ এবং আগামীর পথ' শীর্ষক এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় বক্তারা এমন মতামত দেন। এইচএসবিসি বাংলাদেশ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায়।

ওয়েবিনারের প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান এমপি বলেন, 'বাংলাদেশি পণ্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ গন্তব্য হলো জাপান। বিশেষ করে ব্যবসা ও বিনিয়োগের ক্ষেত্রেও আমাদের দ্বিপক্ষীয় সুসম্পর্ক গড়ে উঠেছে। আমরা জাপানি বিনিয়োগকারীদের তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠা ও সম্প্রসারণে যথাসাধ্য সহযোগিতা দিয়ে যাব।'

বাংলাদেশে জাপানি রাষ্ট্রদূত নাওকি ইতো বলেন, নবনিযুক্ত প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে জাপান বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রায় সহযোগিতা প্রদান অব্যাহত রাখার বিষয়ে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। আড়াইহাজার ইকোনমিক জোন ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিনিয়োগ প্রকল্প, যা জাপানি বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করবে বলে তার বিশ্বাস। এটি এশিয়ার শ্রেষ্ঠ অর্থনৈতিক অঞ্চল হতে পারে যদি কর, কাস্টমস ক্লিয়ারেন্স ও বৈদেশিক রেমিট্যান্স-বান্ধব করা যায় এবং প্রণোদনা দেওয়া যায়।

এইচএসবিসি এশিয়া প্যাসিফিকের হেড অব ইন্টারন্যাশনাল ও হেড অব স্ট্র্যাটেজি অ্যান্ড প্ল্যানিং ম্যাথিউ কে লবনার বলেন, 'এইচএসবিসির

নেটওয়ার্ক বাংলাদেশের মতো হাই গ্রোথ মার্কেটে

অন্য দেশগুলোকে প্রবেশের সুযোগ করে দিচ্ছে, যা বিশ্বব্যাপী অদ্বিতীয়। আমাদের আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্কের মাধ্যমে আমরা বিশ্ব জিডিপির ৯০ শতাংশ বাণিজ্য ও পুঁজিপ্রবাহের সঙ্গে সংযুক্ত।'

জাপানে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমেদ, বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম, বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী, জাইকা বাংলাদেশ অফিসের চিফ রিপ্রেজেন্টেটিভ ইউহো হায়াকাওয়া, জেট্রো বাংলাদেশের কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ ও জেবিসিসিআই প্রেসিডেন্ট ইউজি আন্দো, এইচএসবিসি জাপানের হেড অব গ্লোবাল বিজনেস তাকাসুকে সেকিনে ও এইচএসবিসি বাংলাদেশের সিইও মাহবুব উর রহমান অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

এইচএসবিসি বাংলাদেশের সিইও মাহবুব উর রহমানের সঞ্চালনায় এক ইন্টারভেন্‌শন সেশন অনুষ্ঠিত হয় যেখানে অংশ নেন মারুবিনি করপোরেশনের কান্ট্রি জেনারেল ম্যানেজার হিকারি কাওয়াই, ইতোচুর কান্ট্রি জেনারেল ম্যানেজার তেতসুরো কানো এবং জেবিসিসিআইর মহাসচিব তারেক রাফি ভূঁইয়া (জুন)।

অনুষ্ঠানো জানানো হয়, যে দুটি ক্ষেত্রে জাপানি বিনিয়োগ দেখা যেতে পারে তা হলো জ্বালানি ও বিদ্যুৎ এবং অবকাঠামো উন্নয়ন। বাংলাদেশ সরকার এ দুটি ক্ষেত্রকে দেশের উন্নয়নের দুটি স্তম্ভ হিসেবে অগ্রাধিকার দিয়েছে।