বাকিতে উপকরণ কিনেও কর রেয়াত পাবেন ব্যবসায়ীরা

প্রকাশ: ২২ নভেম্বর ২০২০

সমকাল প্রতিবেদক

এখন থেকে বাকিতে উপকরণ কিনেও কর রেয়াত পাবেন ব্যবসায়ীরা। ব্যবসা-বাণিজ্যের বর্তমান বাস্তবতা বিবেচনা করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এ সুবিধা দিয়েছে। একই সঙ্গে কর রেয়াত নেওয়ার সময় চার কর মেয়াদ থেকে বাড়িয়ে ছয় কর মেয়াদ করা হয়েছে। এ সুবিধা নিতে হলে ব্যবসায়ীদের কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে।

এনবিআরের মূসক আইন ও বিধি শাখা সম্প্রতি এক ব্যাখ্যায় বাকিতে উপকরণ কেনা হলেও ব্যবসায়ীদের কর রেয়াত সুবিধা দেওয়ার কথা জানিয়েছে।

মূল্য সংযোজন কর (মূসক বা ভ্যাট) ও সম্পূরক শুল্ক্ক আইন ২০১২-এর ৪৬ ধারা অনুযায়ী, কোনো উপকরণের দাম এক লাখ টাকার বেশি হলে এবং ক্রেতা ব্যাংকিং ব্যবস্থায় তা পরিশোধ না করলে সরবরাহকারী ভ্যাট ফেরত (রেয়াত) পাবেন না। কিন্তু চলতি মূলধনের স্বল্পতার জন্য বাকিতে উপকরণ কেনা ব্যবসায়িক বাস্তবতা। বাকিতে উপকরণ কিনলে তাৎক্ষণিকভাবে ব্যাংকিং ব্যবস্থায় মূল্য পরিশোধ করা হয় না। ফলে অনেক কোম্পানি দেরিতে ব্যাংকিং ব্যবস্থায় উপকরণের মূল্য পরিশোধ করলেও কর রেয়াত পান না। এ জটিলতা দূর করতে বাকিতে পণ্য কিনলেও ব্যবসায়ীরা যাতে রেয়াত পান, সে জন্য কিছু পদ্ধতি অনুসরণের মাধ্যমে এ সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

পদ্ধতিগুলোর মধ্যে রয়েছে কর চালানপত্রের মাধ্যমে কেনা উপকরণ উৎপাদনস্থলে নেওয়ার পর মূসক হিসেবে এন্ট্রি বা অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। যে কর মেয়াদে উপকরণ কেনা হয়েছে, সেই একই কর মেয়াদের দাখিলপত্রের মাধ্যমে কর রেয়াত নিতে হবে। বাকিতে কেনা উপকরণের দাম ছয় কর মেয়াদের মধ্যে ব্যাংকিং চ্যানেলে পরিশোধ করতে হবে।

এদিকে, উপকরণে কর রেয়াত চার কর মেয়াদের মধ্যে নেওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এই ব্যাখ্যাপত্রে বলা হয়েছে, বাকিতে পণ্য কেনার উপর্যুক্ত কার্যক্রম পণ্য কেনার ছয় কর মেয়াদের মধ্যে শেষ করতে হবে।