একবারেই পাওনা পরিশোধ চান সানোফির কর্মীরা

ট্রেড ইউনিয়নের সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশ: ১৭ জানুয়ারি ২০২১

সমকাল প্রতিবেদক

সানোফি বাংলাদেশের শেয়ার হস্তান্তরের আগে কর্মীদের প্রাপ্য সুবিধা ও ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবি জানিয়েছে এ কোম্পানির নবগঠিত ট্রেড ইউনিয়ন। তারা সব পাওনা এককালীন পরিশোধ চান। গতকাল শনিবার ট্রেড ইউনিয়নের কমিটি গঠন এবং এর লক্ষ্য তুলে ধরতে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়। রাজধানীর পল্টন টাওয়ারে ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরাম (ইআরএফ) কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে নতুন কমিটির সদস্যরা এবং কোম্পানির কিছু কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

সানোফি বাংলাদেশ লিমিটেড ওয়ার্কার্স এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হয়েছেন নুরুজ্জামান রাজু এবং সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন সজীব কুমার চক্রবর্তী। গত বছরের ৫ ডিসেম্বর সমিতির বিশেষ সাধারণ সভায় এ দু'জনসহ ৯ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়।

নুরুজ্জামান রাজু বলেন, ফরাসি ওষুধ কোম্পানি সানোফির বৈশ্বিক ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ ২০১৯ সালের ১৪ অক্টোবর সানোফি বাংলাদেশের ৫৫ শতাংশ শেয়ার বিক্রির ঘোষণা দেয়। এরপর থেকে কর্মীদের দাবি-দাওয়া স্থানীয় ও বৈশ্বিক কর্তৃপক্ষের কাছে সুস্পষ্টভাবে জানানো হয়েছে। ট্রেড ইউনিয়ন গঠনের মূল লক্ষ্য সানোফি বাংলাদেশে কর্মরত এক হাজার কর্মীর স্বার্থ রক্ষা।

তিনি বলেন, কর্মীদের দাবিগুলো শেয়ার হস্তান্তরের আগে বাস্তবায়ন করতে হবে এবং সে বিষয়ে দ্রুত ঘোষণা আসতে হবে। নতুবা ট্রেড ইউনিয়নের পক্ষ থেকে দাবি আদায়ে কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। কর্মীদের দাবির মধ্যে রয়েছে- চাকরিকালীন প্রাপ্য সুবিধা (সার্ভিস বেনিফিট) এবং ক্ষতিপূরণ দেওয়া। এসব সুবিধা এককালীন পরিশোধ করতে হবে।

সানোফি ছয় দশকের বেশি সময় ধরে ওষুধ প্রস্তুত ও বাজারজাত করে আসছে। ফরাসি এ কোম্পানি বাংলাদেশে ব্যবসা করছে ১৯৫৮ সাল থেকে। সানোফি বাংলাদেশ লিমিটেডের ৪৫ দশমিক ৩৬ শতাংশ শেয়ারের মালিকানা রয়েছে বাংলাদেশ সরকারের হাতে। বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন (বিসিআইসি) ১৯ দশমিক ৯৬ শতাংশ আর ২৫ দশমিক ৪০ শতাংশ শেয়ার রয়েছে শিল্প মন্ত্রণালয়ের হাতে। বাকিটা সানোফির হাতে, যা বিক্রির ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।