চায়ের উৎপাদন কমলেও উত্তরবঙ্গে রেকর্ড

প্রকাশ: ২২ জানুয়ারি ২০২১

শিল্প ও বাণিজ্য ডেস্ক

লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি হলেও গত বছর দেশে চায়ের মোট উৎপাদন কমেছে। তবে ২০২০ সালে উত্তরবঙ্গের সমতল ও ক্ষুদ্র বাগানগুলোতে রেকর্ড পরিমাণ চা উৎপাদন হয়েছে।

দেশের ১৬৭ বাগান ও ক্ষুদ্রায়তন বাগান থেকে ২০২০ সালে মোট আট কোটি ৬৩ লাখ কেজি চা উৎপাদন করা হয়। ২০১৯ সালে বাম্পার ফলনের কারণে উৎপাদন হয়েছিল ৯ কোটি ৬০ লাখ কেজি। ২০২০ সালে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৭ কোটি ৫৯ লাখ কেজি। অন্যদিকে গত বছর শুধু উত্তরবঙ্গে সমতলের ও ক্ষুদ্রায়তন বাগান থেকে এক কোটি ৩ কেজি চা জাতীয় উৎপাদনে যুক্ত হয়েছে, এর আগের বছর যা ছিল ৯৬ লাখ কেজি বলে চা বোর্ডের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এতে আরও বলা হয়, করোনার কারণে গত বছর হোটেল, রেস্টুরেন্ট বা চায়ের দোকানে জনসমাগম কমে যাওয়ায় চাহিদা প্রায় ১০ থেকে ১৫ শতাংশ কমে যায়। অপরদিকে প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে উৎপাদন কমেছে ১০ শতাংশ। এরপরও অবশ্য বাজারে চায়ের চাহিদা ও জোগানে ভারসাম্য বজায় রয়েছে।

বাংলাদেশ চা বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল জহিরুল ইসলাম বলেন,

কভিড পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় দেশের সব চা বাগানের সার্বিক কার্যক্রম স্বাভাবিক ছিল। এছাড়া

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চা নিলাম কেন্দ্র চালু রাখা, সঠিক সময়ে ভর্তুকি মূল্যে সার বিতরণ, চা শ্রমিকদের মজুরি বাড়ানোসহ বিভিন্ন পদক্ষেপের কারণে লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়েছে।