চলতি অর্থবছরে রপ্তানি খাতে নগদ সহায়তা বা প্রণোদনার এক হাজার ৬৮৩ কোটি টাকা অর্থ ছাড় করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়। রপ্তানিমুখী দেশীয় বস্ত্র, হিমায়িত চিংড়ি ও অন্যান্য মাছ, চামড়াজাত দ্রব্য, পাট ও পাটজাত দ্রব্যসহ অনুমোদিত অন্যান্য খাতে এবং তৈরি পোশাক রপ্তানির বিপরীতে ১ শতাংশ বিশেষ নগদ সহায়তা দিতে তৃতীয় কিস্তির (জানুয়ারি-মার্চ) এ অর্থ বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুকূলে ছাড় করা হয়েছে। এখন কেন্দ্রীয় ব্যাংক বিভিন্ন ব্যাংকের গ্রাহকের আবেদনের ভিত্তিতে নগদ সহায়তা বিতরণ করবে। অর্থ মন্ত্রণালয় গতকাল সোমবার প্রধান হিসাব ও অর্থ কর্মকর্তাকে এ বিষয়ে চিঠি দিয়েছে।

চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরে রপ্তানি খাতে নগদ সহায়তার জন্য বরাদ্দ রয়েছে সাত হাজার ৩২৫ কোটি টাকা। ইতোমধ্যে প্রথম ও দ্বিতীয় কিস্তির অর্থ ছাড় করা হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় তৃতীয় মেয়াদের (জানুয়ারি-মার্চ) কিস্তির অর্থ ছাড় করা হলো। এর মধ্যে সাধারণ রপ্তানির জন্য এক হাজার ৩৩ কোটি টাকা এবং পাট খাতের জন্য ২৫০ কোটি টাকা রয়েছে। অন্যদিকে, চতুর্থ কিস্তির (এপ্রিল-জুন) অর্থ ছাড়ের প্রস্তাবের সঙ্গে ব্যাংকওয়ারি বিস্তারিত হিসাব চেয়েছে অর্থ বিভাগ।

চিঠিতে বলা হয়, নগদ সহায়তার অর্থ ব্যয়ে স্বচ্ছতা বজায় রাখতে হবে। অর্থ ব্যয়ের ক্ষেত্রে যাতে কোনো ব্যত্যয় না ঘটে, সেদিকে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। কোনো অনিয়ম পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য করুন