মোবাইল ফোনে আর্থিক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান 'নগদ' এখন চার কোটি গ্রাহকের অপারেটর। সম্প্রতি এ মাইলফলক অতিক্রম করেছে বাংলাদেশ ডাক বিভাগের এই আর্থিক সেবা। এ সময়ে এর দৈনিক লেনদেন ৪০০ কোটি টাকা পেরিয়েছে। মঙ্গলবার প্রতিষ্ঠানটির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।\হএতে বলা হয়, ২০১৯ সালের ২৬ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই সেবা উদ্বোধনের পর মাত্র ১০ মাসে এক কোটি গ্রাহকের মাইলফলক অতিক্রম করে 'নগদ'। পরের এক কোটি গ্রাহক পেতে সময় লাগে মাত্র ছয় মাস। দুই কোটি থেকে তিন কোটিতে আসতে সময় লাগে আরও সাত মাস। আর শেষ এক কোটি গ্রাহক পেতে সময় লেগেছে দুই মাসেরও কম সময়।

২০২০ সালের জানুয়ারিতে প্রথম দিকে ১০০ কোটি টাকা লেনদেনের মার্ক অতিক্রম করে 'নগদ'। একই বছরের ডিসেম্বরে দৈনিক লেনদেনের অঙ্ক দ্বিগুণ হয়ে যায়। গত মার্চে দৈনিক লেনদেন ৩০০ কোটি টাকা এবং এক মাসের ব্যবধানে গত সপ্তাহে এটি ৪০০ কোটি টাকা পেরিয়েছে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, "মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কেন্দ্র থেকে প্রান্ত পর্যন্ত সেবা পৌঁছে দেওয়ার যে উদাহরণ 'নগদ' তৈরি করেছে, সেটি সরকারের ডিজিটালাইজেশন প্রক্রিয়ার এক উৎকৃষ্টতম উদাহরণ। খুব অল্প সময়ে 'নগদ' দেশের এক নম্বর মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাবে বলে আমি বিশ্বাস করি।"

বাংলাদেশ ডাক বিভাগের মহাপরিচালক মো. সিরাজ উদ্দিন বলেন, "মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস সেবায় দেশে বিপ্লব ঘটানো অপারেটরের নাম 'নগদ'। এত দ্রুততার সঙ্গে একটি সরকারি সেবার বিস্তৃতি আমাকে আগের চেয়েও অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসী করেছে যে, সরকারের দিনবদলের ভিশনে 'নগদ' গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানেই থাকবে।"

নগদের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর এ মিশুক বলেন, "প্রচলিত সব পরিষেবা যাতে 'নগদ'-এ পাওয়া যায়, তার জন্য আমরা 'সব হবে নগদ-এ' লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছি। আর সে জন্য প্রতিদিনিই আমরা অসাধ্য সাধনের চেষ্টা করে যাচ্ছি। উদ্ভাবনী প্রচেষ্টার এ অগ্রযাত্রায় মাত্র দুই বছরের মধ্যে 'নগদ' ৪০০ কোটি টাকা লেনদেনের মাইলফলক ছুঁয়েছে, এটি আমাদের জন্য অনেক আনন্দের একটি সময়।"

মন্তব্য করুন