জয়দেবপুর-দেবগ্রাম-ভুলতা-মদনপুর (ঢাকা বাইপাস) প্রকল্পের ব্যয় বাড়ছে ৪৩৮ কোটি টাকা। সেইসঙ্গে প্রকল্পটির মেয়াদও চার বছর বাড়ানো হয়েছে। এর ফলে প্রথম দফা সংশোধনের পর ৪৮ কিলোমিটার সড়কটির নির্মাণ ব্যয় দাঁড়াচ্ছে ৬৭৫ কোটি টাকা। আর প্রকল্পটি শেষ হবে ২০২৪ সালের জুনে।

গতকাল জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে সংশোধিত প্রকল্পটি অনুমোদন করা হয়েছে। সেই সঙ্গে অনুমোদন করা হয়েছে আরও ৯টি প্রকল্প। একনেক চেয়ারপারসন হিসেবে এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে বৈঠকে সংযুক্ত হন তিনি। বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলনে কেন্দ্রে।

একনেক অনুমোদন পাওয়া ১০টি প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে চার হাজার ১৬৭ কোটি টাকা। এই অর্থে কোনো ধরনের বিদেশি ঋণ নেই। বাস্তবায়নকারী সংস্থা দেবে ৪১ কোটি টাকা। বাদবাকি সব ব্যয় সরকারের নিজস্ব।

বৈঠক শেষে ব্রিফিংয়ে প্রধানমন্ত্রীর বিভিন্ন নির্দেশনা এবং অনুমোদিত প্রকল্পের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। তিনি জানান, ঢাকা বাইপাস প্রকল্পটির প্রতি গুরুত্ব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন কাজ শেষ করার নির্দেশনা দিয়েছেন তিনি।

পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, বৈঠকে অনুমোদন হওয়া গোপালগঞ্জের পানি সরবরাহ এবং স্যানিটেশন প্রকল্প প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এর পানি অবশ্যই স্বাস্থ্যসম্মত হতে হবে। এ প্রসঙ্গে এই বর্ষায় বৃষ্টির

পানি ধরে রাখার বিষয়ে কাজ করার নির্দেশনাও দিয়েছেন তিনি।

গতকাল একনেকে অনুমোদন হওয়া অন্য প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে- নোয়খালী সড়ক বিভাগাধীন ক্ষতিগ্রস্ত কবিরহাট-ছমির মুন্সীরহাট-সোনাইমুড়ী সড়ক এবং সেনবাগ-বেগমগঞ্জ গ্যাস ফিল্ড-সোনাইমুড়ী সড়ক উন্নয়ন

প্রকল্প, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কঠিন বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য এবং বিভিন্ন অঞ্চলে বাস-ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণের জন্য জমি অধিগ্রহণ প্রকল্প, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের উন্নয়ন প্রকল্প, সম্পূর্ণ বৃক্ষে উন্নতমানের আগর রেজিন সঞ্চয়ন প্রযুক্তি উন্নয়ন প্রকল্প, গাজীপুর জেলা পল্লি অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প, টাঙ্গাইল জেলার গুরুত্বপূর্ণ গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প এবং রংপুর, নীলফামারী, পীরগঞ্জ শহর ও তদসংলগ্ন এলাকায় গ্যাস বিতরণ পাইপলাইন নেটওয়ার্ক নির্মাণ প্রকল্প।

বিষয় : ঢাকা বাইপাস

মন্তব্য করুন