প্রতি মণ কাঁচা পাট তিন হাজার টাকার বেশি দরে কিনবে না কোনো পাটকল। বেসরকারি খাতের পাটকল মালিকদের তিন সংগঠন জুট মিলস অ্যাসোসিয়েশন (বিজেএমএ), জুট স্পিনার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিজেএসএ) ও জুট অ্যাসোসিয়েশনের (বিজেএ) এক যৌথ সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগামী বৃহস্পতিবার থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হচ্ছে।

গতকাল রোববার রাজধানীর মতিঝিলে বিজেএমএ কার্যালয়ে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বিজেএমএ সভাপতি আবুল হোসেন বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। জানতে চাইলে বিজেএমএ মহাসচিব আব্দুল বারেক খান সমকালকে বলেন, বৈঠকে উপস্থিত পাটকল মালিকদের প্রতিনিধিরা অভিযোগ করেছেন, বাজারে পাটের দর অনেক বেশি। কোনো কোনো এলাকায় পাট কিনতে পাওয়া যায় না।

তিনি বলেন, পাটের উচ্চমূল্যের কারণে বিদেশি ক্রেতাদের রপ্তানি আদেশে দেওয়া মূল্যের তুলনায় উৎপাদন খরচ বেশি হচ্ছে। এ কারণে পাটকলগুলোতে উৎপাদন সংকট চলছে। বেশি দামের কারণে ক্রেতারা পাটের বিকল্প পণ্যে ঝুঁকছেন। সব মিলিয়ে পাটের আন্তর্জাতিক বাজার হারাচ্ছে বাংলাদেশ। উদ্যোক্তারা এ পরিস্থিতির জন্য কাঁচা পাটের অবৈধ মজুতদারিকে দায়ী করেছেন।

মন্তব্য করুন