আরভিং স্টোন

জীবনোপন্যাসের অনন্য রূপকার

নির্যাস

প্রকাশ: ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

জীবনোপন্যাসের অনন্য রূপকার

আরভিং স্টোন [১৪ জুলাই, ১৯০৩-১ জানুয়ারি, ১৯৮৯]

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম জনপ্রিয় গবেষণামনস্ক লেখক আরভিং স্টোন। ঐতিহাসিক জীবনীভিত্তিক উপন্যাসের জন্য বিখ্যাত এই লেখক ১৯০৩ সালের ১৪ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের সানফ্রান্সিসকোতে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বাস্তব জীবনের সঙ্গে ফিকশনের সমন্বয়ে আসামান্য সাহিত্য রচনা করে সারাবিশ্বের পাঠকদের প্রিয় লেখকে পরিণত হন। ১৯৩৪ সালে তিনি প্রথম সবার নজরে আসেন তার উপন্যাস 'লাস্ট ফর লাইফ'-এর মাধ্যমে।

স্টোন ১৯৬০ সালে ইউনিভার্সিটি অব সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়া থেকে অনারারি ডক্টরেট অব লেটার্স অর্জন করেন। ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার হেড লাইব্রেরিয়ান ইসার উলার এই লেখকের জীবনে আশীর্বাদ হয়ে আসেন। তিনি স্টোনের প্রখর জ্ঞানতৃষ্ণা ও তথ্য সংগ্রহের ঝোঁককে উসকে দিয়ে তার চারপাশে নানা ধরনের তথ্য, জীবনীনির্ভর গ্রন্থের নিরলস সরবরাহ করেন।

আরভিং স্টোনের সাহিত্যকর্মের প্রধানত জীবনীভিত্তিক আখ্যান; তার বিখ্যাত গ্রন্থ 'লাস্ট ফর লাইফ' ভ্যানগগের জীবনীনির্ভর। ভাই থিও-কে লেখা ভ্যানগগের চিঠিগুলোকে ঘিরে রচিত হয়েছে এটি। গ্রন্থ রচনার ক্ষেত্রে বরাবরই মাঠ পর্যায়ের গবেষণাকে প্রাধান্য দিতেন স্টোন। মাইকেল এঞ্জেলোর জীবনীনির্ভর গ্রন্থ রচনাকালে তিনি টানা কয়েক বছর ইতালি বসবাস করেন এবং গ্রন্থ রচনার তথ্য-উপাত্ত মাঠ পর্যায়ে সংগ্রহ করেন। ইতালি সরকার এ'কাজের জন্য স্টোনকে বিশেষ বৃত্তি ও সহযোগতিা প্রদান করে। আরভিং স্টোনের বহুল আলোচিত ও বিশ্বখ্যাত রচনাবলির মধ্যে বিশেষ 'দ্য এগোনি অ্যান্ড দ্য একসটাসি', ' লাস্ট ফর লাইফ', ' দ্য অরিজিন', 'লাভ ইজ ইটারনাল', ' দ্য প্রেসিডেন্টস লেডি' ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য। পাবলো পিকাসোর জীবনীনির্ভর উপন্যাস 'দ্য এগোনি অ্যান্ড দ্য একসটাসি' বিশ্বের বহুল পঠিত উপন্যাসের একটি। আরভিং স্টোনের জীবনে আরেক গুরুত্বপূর্ণ মানুষ তার সুদীর্ঘকালের জীবনসঙ্গিনী জেন স্টোন। স্ত্রী জেন তার বহু গ্রন্থ সম্পাদনার দায়িত্ব পালন করেন।

আরভিং স্টোন তার জীবনের বেশিরভাগ সময় লস অ্যাঞ্জেলেস, ক্যালিফোর্নিয়ায় কাটিয়েছেন। শেষ জীবনে এই লেখক সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের জন্য স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। ১৯৮৯ সালের ১ জানুয়ারি দারুণ পরিশ্রমী, বিশ্ববরেণ্য এই লেখক প্রয়াত হন।