বুদ্ধদেব বসু: সাহিত্যের রাজপুত্র

নির্যাস

প্রকাশ: ০৪ অক্টোবর ২০১৯      

বুদ্ধদেব বসু: সাহিত্যের রাজপুত্র

[নভেম্বর ৩০, ১৯০৮-মার্চ ১৮, ১৯৭৪]

আধুনিক বাংলা সাহিত্যের যে অধ্যায়কে বলা হয় 'কল্লোল যুগ', সেই অধ্যায়ের তরুণ এবং অন্যতম প্রতিনিধি ছিলেন বুদ্ধদেব বসু। তিনি একাধারে কবি, প্রাবন্ধিক, নাট্যকার, গল্পকার, অনুবাদক, সম্পাদক ও সমালোচক হিসেবে ছিলেন সমাদৃত। এ ছাড়া বিংশ শতাব্দীর বিশ ও ত্রিশের দশকের নতুন বাংলা কাব্যরীতির সূচনাকারী কবি হিসেবে তিনি সুপরিচিত। প্রগতি ও কল্লোল নামে দুটি পত্রিকায় লেখার অভিজ্ঞতা সম্বল করে যে কয়েকজন তরুণ বাঙালি লেখক রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জীবদ্দশাতেই রবীন্দ্রনাথের প্রভাবের বাইরে সরে দাঁড়ানোর দুঃসাহস করেছিলেন, তিনি তাদের অন্যতম।

বুদ্ধদেব বসুর জন্ম কুমিল্লায়। বুদ্ধদেবের শৈশব, কৈশোর ও যৌবনের প্রথমভাগ কেটেছে কুমিল্লা, নোয়াখালী আর ঢাকায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগ থেকে ১৯৩০-এ প্রথম শ্রেণিতে বিএ অনার্স এবং ১৯৩১-এ প্রথম শ্রেণিতে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি ছাত্র হিসেবে এতই মেধাবী ছিলেন যে, বিএ অনার্স পরীক্ষায় তিনি যে নম্বর লাভ করেন তা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অদ্যাবধি একটি রেকর্ড।

১৯৩১ খ্রিষ্টাব্দে কবি বুদ্ধদেব বসু ঢাকা পরিত্যাগ করে কলকাতায় অভিভাসন গ্রহণ করে সেখানে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। ১৯৩৪ সালে খ্যাতিমান লেখিকা প্রতিভা বসুর সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন।

অধ্যাপনার মাধ্যমেই তার কর্মময় জীবনের শুরু। জীবনের শেষাবধি তিনি নানা কর্মে ব্যাপৃত থাকলেও শিক্ষকতাই ছিল জীবিকা অর্জনে তার মূল পেশা।

তিনি উচ্চমানের সাহিত্য সম্পাদক হিসেবে খ্যাতি লাভ করেছিলেন। ঢাকার পুরানা পল্টন থেকে তার ও অজিত দত্তের যৌথ সম্পাদনায় ১৯২৭ থেকে ১৯২৯ পর্যন্ত সচিত্র মাসিক 'প্রগতি' পত্রিকার সম্পাদনা করেন। কলকাতায় বসবাসকালে তিনি প্রেমেন্দ্র মিত্রের সহযোগিতায় ১৯৩৫ সালে ত্রৈমাসিক 'কবিতা' পত্রিকা সম্পাদনা করে প্রকাশ করেন। পঁচিশ বছরেরও অধিককাল তিনি পত্রিকাটির ১০৪টি সংখ্যা সম্পাদনা করে আধুনিক কাব্য আন্দোলনে নেতৃত্ব দেন।

ছাত্রজীবনে ঢাকায় তিনি যে এক্সপেরিমেন্ট শুরু করেন, প্রৌঢ় বয়সেও সেই এক্সপেরিমেন্টের শক্তি তার মধ্যে প্রত্যক্ষ করা যায়। এ ছাড়া বুদ্ধদেব বসু ছিলেন আধুনিক কবিকুলের অন্যতম এক পৃষ্ঠপোষক। কলকাতায় তার বাড়ির নাম রেখেছিলেন কবিতাভবন, যা হয়ে উঠেছিল আধুনিক বাংলা সাহিত্যের তীর্থস্থান। কবিতা, ছোটগল্প, উপন্যাস, প্রবন্ধ, সমালোচনা, নাটক, কাব্যনাটক, অনুবাদ, সম্পাদনা, স্মৃতিকথা, ভ্রমণ, সাহিত্য ও অন্যান্য বিষয়ে বুদ্ধদেব বসুর প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা ১৫৬টি। বাংলা সাহিত্যের অসামান্য এই সৃজনপ্রতিভা ১৯৭৪ সালের ১৮ মার্চ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে কলকাতায় মৃত্যুবরণ করেন।