পদাবলি

পৃথিবীর করতলে

প্রকাশ: ০৪ অক্টোবর ২০১৯      

সেঁজুতি বড়ূয়া

যে প্রতিধ্বনি নিঃশব্দে ছুঁয়ে যাচ্ছে কানে
সকাল জড়ানো ঘুমে, নিষ্ফম্ফল বোবা কান্নায়
ডুবে যাচ্ছে দূরের পাহাড়ে স্মৃতি পারাপারে
বীতশোকে কাঁপে তন্দ্রাহীন শালিক জংশনে
সকালের হু-হু মুমূর্ষু বুক, মিহিন শূন্যতায়
তোমাদের মৌন চরাচরে- সফেদ কাশের বন
এরকম ক্লান্তিতে কেশর পাল্টালে
বৃষ্টি কী বিঁধবে না বিস্তীর্ণ হিংসার পিঠে?

নধর বৃষ্টিগাঙে ঝুলে আছে তোমাদের যে রক্তাক্ত চোখ,
ইশারায় কাকে বিষ ছড়াবে?

এই বৃষ্টির প্রতি পল ছাঁট, অজস্র পানির টানে
আমি পরিবৃত থাকি, তাই অসূয়া গভীর খাদ
ক্রমাগত পেছনে টানে ঝুলে থাকা জন্মান্ধ হিংসার ভেতর!

এভাবে, উন্মাদ সময়ের পিঠে চড়ে-
জান্তব পৃথিবীর করতলে- মুমূর্ষু, আহত
পাখির শরীরে আমি জুঁইফুল ঘ্রাণ নিই বুকভরে...