সুচিত্রা সেনশঙ্কামুক্ত নন

প্রকাশ: ১১ জানুয়ারি ২০১৪      

ম কলকাতা প্রতিনিধি
দীর্ঘ ১৯ দিন ধরে কলকাতার বেলভিউ নার্সিং হোমে চিকিৎসাধীন রয়েছেন মহানায়িকা সুচিত্রা সেন। বুকে কফ জমে যাওয়ার কারণে ফুসফুসের সংক্রমণের পাশাপাশি শ্বাসকষ্টজনিত রোগে আক্রান্ত তিনি। ডা. সুব্রত মৈত্রের তত্ত্বাবধানে একটি মেডিকেল বোর্ড ২৪ ঘণ্টাই তার শারীরিক অবস্থার খেয়াল রাখছে। শুক্রবার মেডিকেল বোর্ডের পক্ষ থেকে একটি বুলেটিনে জানানো হয়, মহানায়িকার শারীরিক অবস্থা আপাতত স্থিতিশীল। তবে শঙ্কামুক্ত নন তিনি। শ্বাসকষ্ট থাকার ফলে নিয়মিত তাকে অক্সিজেন দিতে হচ্ছে। সে সঙ্গে তাকে রাখা হয়েছে নন ইনেসিভেন্টিলেশনে। নেবুলাইজেশনের পাশাপাশি দিনে চারবার করে তার ফিজিওথেরাপি চলছে। বৃহস্পতিবার থেকে তার অবস্থা উদ্বেগজনক হলেও গতকাল তিনি চিকিৎসায় সামান্য সাড়া দিয়েছেন। তবে সুস্থতা প্রসঙ্গে মেডিকেল বোর্ডের বক্তব্য, কবে তিনি সুস্থ হবেন তা এ মুহূর্তে বলা শক্ত।
বার্ধক্যজনিত কারণে সুচিত্রা সেনের শরীরে বেশকিছু সমস্যা দেখা দিচ্ছে। আর বুকে কফ জমে থাকার ফলে ফুসফুসের সংক্রমণও বৃদ্ধি পাচ্ছে। দীর্ঘদিন অন্তরালে থাকার সময় ঘরবন্দি হয়ে থাকার ফলে এ ধরনের সমস্যা তৈরি হয়েছে বলে জানান চিকিৎসকরা। মাঝে বেশ কিছুদিন ভারী খাবার খেতে পারলেও বৃহস্পতিবার থেকে তিনি কিছু খেতে পারছেন না। তবে শুক্রবার দুপুরের পর মহানায়িকাকে সামান্য লিকুইড খাবার খাওয়ানো সম্ভব হয়েছে। এতকিছু সমস্যার মধ্যেও হার্টের অবস্থা স্থিতিশীল থাকায় কিছুটা আশার আলো দেখছে মেডিকেল বোর্ড। সুচিত্রা সেনের বয়সের ফলে বুকের কফ বের করা হলেও আবার তা জমে যাচ্ছে। আর অক্সিজেনের মাত্রা ওঠানামা করলেও বয়সের কারণে তাকে হাইডোজের অ্যান্টিবায়োটিক দেওয়া যাচ্ছে না।
এদিকে শুক্রবারও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মহানায়িকাকে দেখতে নার্সিং হোমে যান সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়। চিকিৎসকদের পাশাপাশি প্রতিদিনের মতো নার্সিং হোমে মায়ের দেখভালের জন্য উপস্থিত ছিলেন মুনমুন সেন এবং তার দুই মেয়ে রিয়া ও রাইমা।


মহানায়িকার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়তেই অন্যান্য দিনের মতো এদিনও নার্সিং হোমের সামনে অগণিত ভক্ত তার সুস্থ হওয়ার খবর শোনার জন্য উদ্গ্রীব হয়ে অপেক্ষা করে। পরিস্থিতির কথা বিচার করে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নার্সিং হোম চত্বরে কঠোর নিরাপত্তা বলয় তৈরি করা হয়েছে।