তিন মেয়েকে নিয়ে পদ্মানদীতে ঝাঁপ দিলেন মা

প্রকাশ: ১১ জানুয়ারি ২০১৪      

ম চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি
চাঁপাইনবাবগঞ্জে তিন মেয়েকে নিয়ে পদ্মা নদীতে ঝাঁপ দেন এক মানসিক প্রতিবন্ধী মা। স্থানীয় লোকজন ঘটনাটি তাৎক্ষণিক টের পেয়ে মা ও বড় মেয়েকে জীবিত উদ্ধার করেন। তবে পানিতে তলিয়ে যায় ছোট দুই মেয়ে। শুক্রবার বিকেলে স্বজনরা দুই শিশুর ভেসে ওঠা লাশ উদ্ধার করেন। বৃহস্পতিবার রাতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নের খলিফারচর গ্রাম এ ঘটনা ঘটে।
নারায়ণপুর ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আলমগীর কবীর জানান, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে খলিফারচর গ্রামের শহীদুল ইসলামের স্ত্রী আক্তারা বেগম তার তিন মেয়েকে নিয়ে পাশের পদ্মা নদীতে ঝাঁপ দেন। এ সময় জেলেরা আক্তারা বেগম ও তার ১০ বছর বয়সী বড় মেয়েকে উদ্ধার করতে সক্ষম হলেও ছোট দুই মেয়ে পদ্মার পানিতে তলিয়ে যায়। রাতভর খুঁজেও তাদের পাননি জেলেরা। অবশেষে শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে ভেসে উঠলে ছয় বছরের হামেদা ও আড়াই বছরের মাহমুদার লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি জানান, গৃহবধূ আক্তারা বেগম মানসিক ভারসাম্যহীন।
এ ব্যাপারে সদর থানার ওসি জসিম উদ্দীন জানান, ঘটনাটি তিনি শুনেছেন। তবে এখনও তার কাছে কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি।