যৌথ বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষ

সুন্দরগঞ্জে গুলিবিদ্ধ শিবিরকর্মীর মৃত্যু

প্রকাশ: ২২ জানুয়ারি ২০১৪      

বগুড়া ব্যুরো/গাইবান্ধা/সুন্দরগঞ্জ প্রতিনিধি
যৌথ বাহিনীর সঙ্গে জামায়াত-শিবির কর্মীদের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ শিবিরকর্মী শাহিনুর রহমান সোহাগ (১৬) চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল মঙ্গলবার ভোরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছে।
সুন্দরগঞ্জ উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি শহিদুল ইসলাম মঞ্জু জানান, সর্বানন্দ ইউনিয়নের রামভদ্র, খানাবাড়ি, কদমতলী ও কানারমোড় এলাকায় শনিবার ভোরে যৌথ বাহিনী অভিযান চালায়। এ সময় খানাবাড়ি গ্রামের কাজী শফিকুর রহমানের ছেলে স্থানীয় দাখিল মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র শিবিরকর্মী শাহিনুর রহমান সোহাগ গুলিবিদ্ধ হয়। পরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়। সোহাগের পারিবারিক সূত্র জানায়, মঙ্গলবার মাগরিবের নামাজের পর জানাজা শেষে মসজিদ কমপ্লেক্স সামাজিক কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়।
পুলিশ কর্মকর্তারা সোহাগের গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যুর কথা জানালেও পরিবারের পক্ষ থেকে তা অস্বীকার করা হয়েছে। হাসপাতালের একাধিক সূত্র জানায়, পুলিশি ঝামেলা এড়ানোর কারণেই পরিবারের সদস্যরা সোহাগের গুলিবিদ্ধ হওয়ার কথা চেপে যাচ্ছে।
সোহাগের বাবা শফিকুল ইসলাম জানান, তার ছেলে ৮ম শ্রেণীর ছাত্র। সে কোনো রাজনৈতিক সংগঠনের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিল না।
সুন্দরগঞ্জে ৩ আসামি গ্রেফতার
গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় ভোটকেন্দ্রে নিয়োজিত পুলিশের গুলি ছিনতাই ও যৌথ বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষের মামলার ৩ আসামিকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। মঙ্গলবার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার রামজীবন গ্রামের শাহাজাদা, মনোয়ারুল ইসলাম ও বিএনপি নেতা ইখতিয়ার উদ্দিন ভূঁইয়া নিপনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।