নারায়ণগঞ্জ ও নাটোরে বিএনপি প্রার্থী চেয়ারম্যান নির্বাচিত

প্রকাশ: ১০ জুন ২০১৪      

সমকাল ডেস্ক

নারায়ণগঞ্জের বন্দর এবং নাটোরের নলডাঙ্গায় গতকাল সোমবার সুষ্ঠুভাবে উপজেলা নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। কোনো কেন্দ্রেই বড় ধরনের কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। নির্বাচনে উভয় উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে জয় পেয়েছেন।
বন্দর উপজেলায় আতাউর রহমান মুকুল এবং নলডাঙ্গা উপজেলায় অ্যাডভোকেট শাখাওয়াৎ হোসেন নির্বাচিত হয়েছেন।
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি কম থাকলেও কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। বন্দর থানার ওসি আক্তার মোর্শেদ এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলা নির্বাচনে জয় পেয়েছেন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আতাউর রহমান মুকুল। তিনি ১৯ হাজার ৫৪৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দেলোয়ার হোসেন দেলু পেয়েছেন ১১ হাজার ১৩৩ ভোট। আতাউর রহমান মুকুল বর্তমান চেয়ারম্যান ছিলেন। ভাইস চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইফুল ইসলাম এবং নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিএনপি মনোনীত অ্যাডভোকেট মাহমুদা আক্তার নির্বাচিত হয়েছেন।
নাটোর প্রতিনিধি জানান, দু'একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া সোমবার নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলা পরিষদের নির্বাচন
শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়। তবে দু'একটি কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অভিযোগে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী আওয়ামী লীগ কর্মী জিয়া, শাহজালাল দেওয়ান, আবদুল আজিজ, সোহেল রানা, আবুল কালাম আজাদ, সোহাগ, ফকরুদ্দিন ফুটু ও আবু বক্কর সিদ্দিক সাগর নামে ৮ জনকে আটক করে।
নলডাঙ্গা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিএনপি সমর্থিত অ্যাডভোকেট শাখাওয়াৎ হোসেন বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৪৬টি কেন্দ্রের সবক'টিতে ৩৪ হাজার ৩১৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের অধ্যাপক এসএম ফিরোজ পেয়েছে ২৮ হাজার ৩৯৫ ভোট। নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৮ দলের জামায়াতের জিয়াউল হক এবং নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিএনপির মহুয়া পারভিন লিপি নির্বাচিত হন।