পড়ার খরচ মেটাতে মাছ বেচেছেন সাদ্দাম

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০১৪      

এবিএম ফজলুর রহমান, পাবনা অফিস

হাওয়ার বিলে মাছ ধরে বাজারে বিক্রি করে পড়ার খরচ জুগিয়েছেন সাদ্দাম হোসেন রবিন। ওই আয় থেকে সংসারের খরচও জোগান দিতে হয়েছে তাকে। এরপর যে সময়টুকু পাওয়া গেছে, সে সময়ে পড়াশোনা করে জিপিএ ৫ পেয়েছেন পাবনার সুজানগর উপজেলার দুলাই ডা. জহুরুল কামাল ডিগ্রি কলেজের ব্যবসায় শিক্ষা শাখার এ ছাত্র। এসএসসিতেও রবিন জিপিএ ৫ পেয়েছিলেন।
রবিনের বাবা আনছার আলী মণ্ডল পেশায় মৎস্যজীবী। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ তিনি। ছয় সদস্যের অভাবের সংসারে অর্ধাহারে থাকতে হয়েছে তাকে। না খেয়েও কেটেছে
অনেক রাত। তার মধ্যে তিন ভাই ও এক বোনের পড়ালেখার খরচ জোগাতে হিমশিম খেতে হয়েছে তার বাবাকে। তার অসুস্থতায় বড় ছেলে হওয়ায় সংসারের হাল ধরতে হয়েছে রবিনকেই। পরীক্ষার ফরম পূরণের টাকা জোগাড়ের জন্য মাঘ মাসের কনকনে শীতে বিলে মাছ ধরেছেন রবিন। টাকার অভাবে প্রাইভেট পড়তে পারেননি কখনও। তবুও থেমে থাকেনি জীবন সংগ্রাম।
প্রবল ইচ্ছাশক্তিই তাকে এ সাফল্য এনে দিয়েছে বলে মনে করেন রবিন। এখন তার একটাই ইচ্ছা, উচ্চ শিক্ষিত হয়ে দেশ গড়ার কাজে অংশ নেওয়া। কিন্তু তার সে ইচ্ছা কি আদৌ পূরণ হবে? উচ্চশিক্ষার জন্য যে অর্থের প্রয়োজন, তা তার হতদরিদ্র বাবার পক্ষে কোনোভাবেই জোগান দেওয়া সম্ভব নয়।