সিংড়ায় ৮ ছাত্রকে বেত্রাঘাত

ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ শিক্ষামন্ত্রীর

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০১৪      

রাজশাহী ব্যুরো

নাটোরের সিংড়া উপজেলার পাঙ্গাশিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ ছাত্রকে বেত্রাঘাতের ঘটনা তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি গতকাল সোমবার সকাল ৯টায় টেলিফোনে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা রাজশাহী অঞ্চলের ভারপ্রাপ্ত উপপরিচালক ড. শরমিন ফেরদৌস চৌধুরীকে এই নির্দেশ দেন।
ড. শরমিন নাটোর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুল খালেক ও সিংড়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোসহাক আলীকে তদন্তের নির্দেশ দেন। আগামী ৩ দিনের মধ্যে তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।
এ ছাড়া রাজশাহী অঞ্চলের বিদ্যালয় বা মাদ্রাসায় বহিরাগত শিক্ষক প্রাইভেট বা কোচিং কার্যক্রম চালাচ্ছেন কি-না ৫ দিনের মধ্যে তার তথ্য চেয়ে পাঠিয়েছেন উপ-পরিচালক।

নাটোর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আবদুল খালেক বলেন, গতকাল তিনি পাঙ্গাশিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়েছিলেন। সেখানকার শিক্ষক, অভিভাবক ও স্কুলছাত্রদের সঙ্গে তিনি কথা বলেছেন। বিদ্যালয়ে গিয়ে কী পরিস্থিতি দেখেছেন জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, প্রতিবেদনেই সবকিছু উল্লেখ করা হবে।
গত রোববার সকালে বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ১০-১২ জন ছাত্র প্রাইভেট পড়ার জন্য একটি কক্ষ বরাদ্দ দেওয়ার জন্য সহকারী প্রধান শিক্ষকের কাছে অনুরোধ জানায়।
তিনি কক্ষ বরাদ্দ দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। এ নিয়ে ছাত্রদের সঙ্গে তার বাগবিতণ্ডা হয়। এর একপর্যায়ে প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমান ও সহকারী প্রধান শিক্ষক রাশেদুল ইসলাম এবং সহকারী শিক্ষক ফয়সাল ইসলাম ছাত্রদের বেত্রাঘাত করেন।