দশটি বেতন স্কেল হচ্ছে

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০১৪      

বিশেষ প্রতিনিধি

সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য নতুন যে বেতন কাঠামো নির্ধারণ করা হবে, তাতে 'স্কেল' থাকছে দশটি। এখন ২০টি স্কেল রয়েছে। এ ছাড়া সব সরকারি চাকরিজীবীকে বীমা সুবিধা দেওয়া হতে পারে। সরকার গঠিত পে-কমিশন তাদের প্রতিবেদনে এসব সুপারিশ করবে। নির্ভরযোগ্য সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। গতকাল পে-কমিশনের চেয়ারম্যান বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গর্ভনর ড. মোহাম্মদ ফরাস উদ্দিনের সভাপতিত্বে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। কমিশন গঠনের পর এটি ছিল সপ্তম বৈঠক। যোগাযোগ করা হলে পে-কমিশনের চেয়ারম্যান ড. ফরাস উদ্দিন সমকালকে বলেন, আলোচনা ইতিবাচক হয়েছে। সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য ভালো কিছু করার
চেষ্টা করা হচ্ছে।
সূত্র জানায়, সব সরকারি চাকরিজীবীকে জীবন বীমার আওতায় আনা হতে পারে। পে-কমিশন তাদের প্রতিবেদনে এ সুপারিশ করবে। বীমার বিপরীতে প্রিমিয়ামের টাকা সরকার দেবে। প্রিমিয়ামের অঙ্ক কত হবে, তা কমিশন সুপারিশ করবে। তবে বীমা করা বাধ্যতামূলক থাকবে না। এ বিষয়ে পে-কমিশনের চেয়ারম্যান ফরাস উদ্দিন বলেন, সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য 'ব্যাপক ভিত্তিক' বীমার চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে।
গত বছরের ডিসেম্বরে পে-কমিশন গঠন করা হলেও আনুষ্ঠানিক কাজ শুরু হয় এ বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে। আগামী ডিসেম্বরে পে-কমিশন তাদের প্রতিবেদন দেওয়ার কথা।
জানা গেছে, বর্তমান বেতন কাঠামো অনুযায়ী ২০টি স্কেলে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন-ভাতা দেওয়া হয়। এর মধ্যে সর্বোচ্চ স্কেল ৪০ হাজার এবং সর্বনিম্ন ২ হাজার ২০০ টাকা। নতুন যে বেতন কাঠামো হবে, তাতে স্কেলের ধাপ বিদ্যমানের চেয়ে কমিয়ে অর্ধেক করা হতে পারে। তবে সর্বোচ্চ এবং সর্বনিম্ন বেতন স্কেল কত হবে, সে বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত নেয়নি কমিশন। সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য সর্বশেষ বেতন-ভাতা বাড়ানো হয়েছিল ২০০৮ সালে। তখন সর্বোচ্চ ৭৬ শতাংশ পর্যন্ত বেতন বাড়ানো হয়।