ব্যাংক ম্যানেজারের মৃত্যু

কারণ নিশ্চিত হতে আলামত পরীক্ষা

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০১৪      

সমকাল প্রতিবেদক

রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সোনালী ব্যাংকের রূপসী বাংলা (সাবেক শেরাটন হোটেল) শাখার সাবেক আলোচিত ম্যানেজার একেএম আজিজুর রহমানের লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে তার লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে নিয়ে আসে শাহবাগ থানা পুলিশ। হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. একেএম শফিউজ্জামান লাশের ময়নাতদন্ত করেন। ময়নাতদন্ত শেষে একেএম আজিজুর রহমানের লাশ তার পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হতে আজিজুরের শরীরের আলামত সংগ্রহ করে প্যাথলজি পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। রোববার রাতে একেএম আজিজুর রহমান কারা হেফাজতে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিসহ অনেক রোগে আক্রান্ত হয়ে এক মাস ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। দেশের ব্যাংকিং খাতের সবচেয়ে বড় দুর্নীতি হলমার্ক কেলেঙ্কারির ঘটনায় দায়ের করা ৩৮টি মামলার প্রতিটিরই আসামি ছিলেন তিনি।
আজিজুরের ভগি্নপতি জাকির হোসেন বলেন, হঠাৎ সন্ধ্যায় তার মারা যাওয়ার বিষয়টি রহস্যজনক। গোপালগঞ্জের কাশিয়ানি উপজেলার শুকতা গ্রামে আজ তার লাশ দাফন করা হবে। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেল সুপার ফরমান আলী বলেন, লাশ নেওয়ার জন্য কারা কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে দুপুরে লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। আজিজুরের মৃত্যুর ঘটনায় শাহবাগ থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।
লাশের সুরতহাল রিপোর্ট করেন ঢাকা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. রেহানুল হক। রিপোর্টে তিনি বলেন, মৃত দেহ সোজা লম্বা অবস্থায় ছিল। পায়ের পাতা ও নখ স্বাভাবিক। মলদ্বার, গোপনাঙ্গ, পেট, বুক, পিঠ, নাক ও কান স্বাভাবিক। তবে পেট সামান্য ফোলা। শরীরে কোনো ধরনের জখমের চিহ্ন পাওয়া যায়নি।