ঘাটাইলে তিন ইউনিয়নে নির্বাচন নিয়ে সংশয়

প্রকাশ: ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৬

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার তিনটি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠান নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। ইউনিয়ন তিনটি হলো উপজেলার ধলাপাড়া, রসুলপুর ও সন্ধানপুর। ইউনিয়ন তিনটি বিভক্ত করে আরও নতুন তিনটি ইউনিয়ন সৃষ্টি করার বিরুদ্ধে মামলা ও ভোটার তালিকা বিভাজন জটিলতায় অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। মামলা থাকায় ইউনিয়ন তিনটিতে নির্বাচন হবে কি-না তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।
ইউনিয়ন তিনটি আয়তন, জনসংখ্যা ও ভোটার সংখ্যার দিক দিয়ে বৃহৎ। বর্তমানে ধলাপাড়া ইউনিয়নের ভোটার সংখ্যা ৩২ হাজার ৬৯১, রসুলপুরের ৩৭ হাজার ৪২১ এবং সন্ধানপুর ইউনিয়নে ৩০ হাজার ৭৮০ জন। জনস্বার্থে এই তিনটি ইউনিয়ন ভেঙে আরও তিনটি নতুন ইউনিয়নসহ ছয়টি ইউনিয়ন গঠনের প্রস্তাব করে স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন। গত বছরের ১২ আগস্ট এ-সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয় সংশ্লিষ্ট উপজেলা প্রশাসন থেকে। সীমানা ও ভোটার নির্ধারণ করে পাঠানো ইউনিয়ন ছয়টি হলো ধলাপাড়া, সাগরদীঘি, রসুলপুর, লখিন্দর, সন্ধানপুর ও সংগ্রামপুর। উপজেলা প্রশাসনের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সরকার ২০১৪ সালের ২১ আগস্ট স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯-এর ১৩-এর ৮ উপ-ধারা মোতাবেক বিভাজিত ছয়টি ইউনিয়নের গেজেট বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। এরপর এ নিয়ে কার্যক্রম আর এগোয়নি। বিধি মোতাবেক স্থানীয় নির্বাচন অফিস ভোটার বিভাজনের কোনো চিঠি পায়নি এ পর্যন্ত। গেজেট প্রকাশের পর পরই রসুলপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কাশেম ও ইউপি সদস্য আবুল হাশেম, সন্ধানপুর ইউনিয়নের রেজাউল করিম এবং ধলাপাড়া ইউনিয়নের পক্ষে লিটন ভূঁইয়া ও কোরবান আলী পৃথকভাবে হাইকোর্টে বিভক্তির বিরুদ্ধে রিট করেন, যা বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে। রিটটি নিষ্পত্তি না হওয়ায় উলি্লখিত তিনটি ইউনিয়নে নির্বাচন হবে কি-না তা নিয়ে দেখা দিয়েছে সংশয় ।
ঘাটাইল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম খান সামু বলেন, ধলাপাড়া, রসুলপুর ও সন্ধানপুর_ এ তিনটি ইউনিয়ন উপজেলার বৃহৎ ইউনিয়ন। তাই জনগণের সেবার মান বাড়াতে ইউনিয়ন তিনটি ভাগ করে ছয়টি ইউনিয়ন করে প্রস্তাব পাঠানো হয়। তা স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় গ্রহণ করে গেজেট প্রকাশ করেছে। সীমানা ও ওয়ার্ড বিভক্তি হলেও এখনও ভোটার বিভক্তির কাজ সম্পন্ন হয়নি। তাই নবগঠিত ছয়টি ইউনিয়নে নির্বাচন হবে কি-না তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হোসনে আরা সাংবাদিকদের জানান, নির্বাচন কমিশন সচিবালয় থেকে ভোটার তালিকা ভাগ করার কোনো নির্দেশনা আসেনি। তাই ভোটকেন্দ্র নির্ধারণ করা হয়নি। এ অবস্থায় ওই তিনটি ইউনিয়ন এবং নবগঠিত ইউনিয়নে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের চিঠি ও নির্দেশনা মোতাবেক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইউনিয়ন কাউন্সিল নির্বাচনে প্রথম ধাপের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। ওই তফসিলে টাঙ্গাইলের ১২টি উপজেলার মধ্যে শুধু নাগরপুর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।