স্ত্রীকে 'শিক্ষা' দিতে...

প্রকাশ: ১২ জুন ২০১৬      

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি

ঈশ্বরদীতে স্ত্রীকে শিক্ষা দিতে অসুস্থ শিশুপুত্র আবুল হায়াতকে (১০ মাস) ওষুধের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে খাইয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে বাবার বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত বিপ্লব হোসেন ঈশ্বরদীর ছলিমপুর ইউনিয়নের মানিকনগর পশ্চিমপাড়ার আবদুস সামাদের ছেলে। শুক্রবার রাত ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে গতকাল শনিবার সকালে পুলিশ শিশুটির লাশ উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। এলাকাবাসী, পরিবারের লোকজন, পুলিশ ও স্থানীয় ইউপি মেম্বারসহ বিভিন্ন সূত্র জানায়,
স্ত্রীকে 'শিক্ষা দিতে' গিয়ে বিপ্লব হোসেন তার শিশুপুত্র আবুল হায়াতকে ওষুধের
সঙ্গে বিষ মিশিয়ে হত্যা করেছে। তবে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট এলে বিষয়টি পরিষ্কার হবে বলে জানান ঈশ্বরদী থানার ওসি বিমান কুমার দাশ। ছলিমপুর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার আরিফ মহলদার জানান, বিপ্লব প্রায়ই তার স্ত্রী শারমিনকে নির্যাতন করত। সম্প্রতি সে স্ত্রী-সন্তান ফেলে রেখে আরেকটি বিয়ে করে চলে যায়। শুক্রবার রাতে বাড়িতে ফিরে এসে স্ত্রী শারমিনকে বাড়ি থেকে বের করে দিতে মারধর করে। প্রতিবেশী স্বপন জানান, শিশু হায়াত জ্বরে ভুগছিল, সকাল ও দুপুরে তাকে ওষুধ খাওয়ানোর পর সে কিছুটা সুস্থ হয়ে উঠছিল। রাতে মা শারমিন কাজে ব্যস্ত থাকার সুযোগে বিপ্লব ওষুধের সঙ্গে বিষ মিশিয়ে তার মাকে (শিশুর দাদি) ওষুধ খাইয়ে দিতে বলে। ওষুধ খাওয়ানোর পরপরই শিশু হায়াত নিস্তেজ হয়ে পড়ে। দ্রুত তাকে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় ঈশ্বরদী থানায় লিখিত অভিযোগটি ময়নাতদন্ত রিপোর্ট এলে নিয়মিত মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হবে বলে জানান ঈশ্বরদী থানার ওসি। এ বিষয়ে অভিযুক্ত বিপ্লবের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।