রাজনীতিবিদদের সম্মানে খালেদা জিয়ার ইফতার

প্রকাশ: ১২ জুন ২০১৬      

সমকাল প্রতিবেদক

রাজনীতিবিদদের সম্মানে বিএনপি আয়োজিত ইফতার মাহফিলে ২০ দলীয় জোটের শরিক দল ও বিভিন্ন সমমনা রাজনৈতিক দলের নেতারা অংশ নিলেও ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের কোনো নেতা অংশ নেননি। ইফতার পার্টিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামসহ প্রেসিডিয়াম সদস্য, দলের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্যসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কেন্দ্রীয় নেতাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি বলে জানা গেছে। তবে রাজনীতিবিদ হিসেবে বিদিশা এরশাদ ইফতার পার্টিতে অংশ নেন।
গতকাল শনিবার রাজধানীর বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন-৪ হলে (নবরাত্রি) রাজনীতিবিদদের সম্মানে এ ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে বিএনপি। প্রতি বছর রমজানে রাজনীতিবিদ ও পেশাজীবীদের সম্মানে খালেদা জিয়া ইফতারের আয়োজন করেন। ইফতারের আগে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। ইফতার মাহফিলে ২০ দলীয় জোটের শরিকদের বাইরে অংশ নেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সাবেক স্ত্রী বিদিশা ও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের
সাধারণ
সম্পাদক হাবীবুর রহমান তালুকদার। ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) আহসান হাবিব লিংকন ও বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদের পাশে বসে ইফতার করেন।
২০ দলীয় জোটের শরিকদের মধ্যে ইফতার পার্টিতে যোগ দেন_ বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির অধ্যাপক মজিবুর রহমান, এলডিপির কর্নেল (অব.) অলি আহমদ, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, জাতীয় পার্টির (জাফর) টিআইএম ফজলে রাব্বী, জমিয়তে ওলামায়ে ইসলামের মুফতি ওয়াক্কাস, পিপলস পার্টির গরীবে নেওয়াজ, জাগপার শফিউল আলম প্রধান, জাতীয় পার্টির ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ, বাংলাদেশ ন্যাপের জেবেল রহমান গানি, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি খন্দকার গোলাম মোর্তুজা, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, মুসলিম লীগের এএইচএম কামরুজ্জামান, ন্যাপ ভাসানীর আজহারুল ইসলাম, ইসলামিক পার্টির আবু তাহের, এনডিপির ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, ডেমোক্রেটিক লীগের সাইফুদ্দিন মনি, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমেদ প্রমুখ।
বিএনপি নেতাদের মধ্যে ছিলেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, তরিকুল ইসলাম, লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন চৌধুরী, সেলিমা রহমান, এনাম আহমেদ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, মীর মোহাম্মদ নাছির, ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, অ্যাডভোকেট আহমদ আযম খান, ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, এনাম আহমেদ চৌধুরী, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব মজিবুর রহমান সারোয়ার, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, ডা. সাখাওয়াত জীবন, শামা ওবায়েদ।
এ ছাড়া আরও ছিলেন বিএনপি নেতা নাদিম মোস্তফা, আমান উল্লাহ আমান, অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, সুলতান সালাহ উদ্দিন টুকু, হাবীবুল ইসলাম হাবীব, শহীদুল ইসলাম বাবুল প্রমুখ। বিএনপি ও এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দও অংশ নেন।