সন্ত্রাসী ধরতে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না :কামরুল

প্রকাশ: ১২ জুন ২০১৬      

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

দেশব্যাপী সাঁড়াশি অভিযানের নামে সরকার বিএনপি নেতাকর্মীদের হেনস্তা ও হয়রানি করছে বলে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর যে অভিযোগ তুলেছেন তা প্রত্যাখ্যান করেছেন খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম।
তিনি বলেন, বিএনপি আজ একটি সন্ত্রাসী সংগঠনে পরিণত হয়েছে। রাজনৈতিক পরিচয়ে সন্ত্রাসী হিসেবে যদি বিএনপি কাজ করে, তাহলে কোনো অবস্থাতেই ছাড় দেওয়া হবে না। সরকার সন্ত্রাসী ধরতে অভিযান চালাচ্ছে। আর সে সন্ত্রাসী যদি বিএনপি ও ছাত্রদলের হয়ে থাকে, তাহলে তাকেও গ্রেফতার করা হবে।
গতকাল শনিবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে (টিটিসি) আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে ছাত্রলীগ এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।
বিএনপিকে জঙ্গি সংগঠনের পৃষ্ঠপোষক উল্লেখ করে কামরুল ইসলাম বলেন, 'যারা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত তাদের অতীত ইতিহাস ঘেঁটে দেখা যায়, তারা জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে সম্পৃক্ত। বিএনপি তাদের সঙ্গে কাজ করছে। সরকারের শাসনকে আক্রমণ করার জন্য সন্ত্রাসীরা শহরে না পেরে এখন গ্রামগঞ্জে গেছে সন্ত্রাস করার জন্য। আজ গোপন জঙ্গি ও গুপ্ত তৎপরতা, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা এবং নিরীহ ধর্মযাজকদের হত্যা করছে তারা।'
শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে এই সন্ত্রাসী, ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য ছাত্রলীগের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।
সংগঠনের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেনের সঞ্চালনায় সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী রোটন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ সোহেল রানা টিপু, সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ সাকিব বাদশা প্রমুখ।