মাছ ধরতে নিয়ে শিশুকে হত্যা করল যুবলীগ নেতা

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০১৭      

দক্ষিণ চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় মাছ ধরতে ডেকে নিয়ে শিশুকে হত্যা করেছে স্থানীয় এক যুবলীগ নেতা। শিশুটির নাম মিজানুর রহমান জিসান (৭)। সে উপজেলার দক্ষিণ চরতীর আন্নারপাড়া এলাকার আবুল হাসেমের ছেলে। যুবলীগ নেতা একই এলাকার মৃত ইয়াকুব হোসেনের ছেলে আলী আহমদ (৩৫) এবং সে একই ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক। গত শুক্রবার এ ঘটনা ঘটলেও প্রকাশ পায় গতকাল শনিবার দুপুরে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে যুবলীগ নেতা আলী আহমদ মাছ ধরতে পার্শ্ববর্তী ডোবায় যায়। এ সময় মিজানুর রহমান জিসানকে ডেকে নিয়ে যায়। আলী আহমদ মাছ ধরে একা বাড়িতে ফিরে এলেও আসেনি জিসান। এতে তার মা মনোয়ারা বেগম আলী আহমদের কাছে ছেলে কোথায় জানতে চাইলে সে জানায়, জিসান আগেই চলে এসেছে। মনোয়ারা বেগমের সন্দেহ হলে তিনি বিষয়টি এলাকাবাসীকে জানান। পরে এলাকাবাসী আলী আহমদের কাছে জিসানের ব্যাপারে জানতে চাইলে তাকে হত্যা করে লাশ ডোবায় লুকিয়ে রেখেছে বলে জানায়। তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক এলাকাবাসী ডোবায় গিয়ে কাদার মধ্যে মাথা ডোবানো অবস্থায় জিসানের লাশ উদ্ধার করে। পরে এলাকাবাসী আলী আহমদকে মারধর করে বেঁধে রাখে। খবর
পেয়ে পুলিশের একটি দল গিয়ে গ্রেফতারের চেষ্টা চালালে এলাকাবাসী বাধা দেয়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। উভয়পক্ষের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ প্রায় ৩৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে। পরে পুলিশ আলী আহমদকে থানায় নিয়ে আসে। সংঘর্ষে পুলিশ সদস্য আহত হন। তারা হলেন_ এসআই নিয়ামত উল্লাহ, কনস্টেবল মো. শাহজাহান, ছৈয়দ নুর ও আমজাদ হোসেন।
সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে এ ব্যাপারে থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান।