আড়াইহাজারে হত্যা মামলা তুলে না নেওয়ায় আবারও হামলা, বাড়ি ভাংচুর

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০১৭      

আড়াইহাজার (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে হত্যা মামলা তুলে না নেওয়ায় বাদী পক্ষের ওপর প্রতিপক্ষ হামলা চালিয়েছে। শনিবার সকালে উপজেলার বিশনন্দী শরীফপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এ সময় হামলাকালীরা বাদীর ঘরসহ ৫টি বাড়ি ও আসবাবপত্র ভাংচুর করে। হামলায় নারীসহ ১০ জন আহত হয়েছেন। ২০১০ সালে উপজেলার শরীফপুর গ্রামের মামুন মিয়া ওই এলাকায় একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে দাওয়াতে যাওয়ার সময় পূর্বশত্রুতার জের ধরে তাকে কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষ। এ ঘটনায় মামুনের বাবা অহিদ সাঈদ, কবির, মাজহারুলসহ ২০ জনের নাম উল্লেখ করে হত্যা মামলা করেন। এরপর থেকে আসামিপক্ষ বাদীকে মামলা তুলে নিতে নানাভাবে হুমকি-ধমকি দিতে থাকে। আগামী বৃহস্পতিবার হত্যা মামলাটির শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। এর মধ্যে মামলার পলাতক আসামি জমির, আমিনুল, সাদ্দাম, ডালিম, কবির, ইকবাল ও আতার বিরুদ্ধের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হওয়ায় শুক্রবার রাতে পুলিশ আসামিদের বাড়িতে তল্লাশি চালায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শুক্রবার সকালে আসামি সাঈদ, কবির, মাজহারুল জামিলসহ প্রতিপক্ষের লোকজন বাদী পক্ষের লোকজনের ওপর হামলা চালায়। এ সময় তাদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে নারীসহ ১০ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে ঝর্ণা আক্তার, টুম্পা, আমির হোসেন, লীমা আক্তার ও আমির আলীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। বিবাদী পক্ষের লোকজন এ সময় ৪-৫টি বাড়ি ও আসবাবপত্র ভাংচুর করে।
থানার ওসি মো. সাখাওয়াত হোসেন জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠনো হয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতারে অভিযান চালানো হচ্ছে। মামুন হত্যা মামলাটি তুলে না নেওয়ায় এর আগে গত ১৩ জুন বিকেলে প্রতিপক্ষ বাদী পক্ষের লোকজনের ওপর হামলা চালিয়ে ১০ জনকে গুরুতর আহত করেছিল।