পুঁজিপতিরা সমাজে বৈষম্য কমাতে দেবে না-কাজী খলীকুজ্জমান

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০১৭      

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ, ঢাকা স্কুল অব ইকোনমিক্সের চেয়ারম্যান কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ বলেছেন, 'পুঁজিভিত্তিক বিশ্ব ব্যবস্থায় বৈষম্য কমানো সম্ভব নয়। সমাজে যাদের ক্ষমতা বেশি তারা তা হতে দেবে না। পুঁজিপতিরা অধিক মুনাফা পাওয়ার জন্য সমাজে বৈষম্য তৈরি করে। সরকার সব সময় বৈষম্য দূর করতে পারবে না। এ জন্য জনআন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। পুঁজিকে বাদ দিয়ে মানুষকে কেন্দ্র করে প্রকল্প নির্ধারণ করতে হবে।'
গতকাল শনিবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিরাজুল ইসলাম লেকচার হলে 'বৈষম্যের মোকাবেলা' শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। তরুণ ইন্টেলেকচুয়ালদের পাঠশালা 'রিডিং ক্লাব' এবং জ্ঞানতাপস আবদুর রাজ্জাক বিদ্যাপীঠ যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। বক্তা ছিলেন বিশ্বব্যাংকের বাংলাদেশ কার্যালয়ের প্রধান অর্থনীতিবিদ জাহিদ হোসেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন রিডিং ক্লাবের পরিচালক আরিফ খান।
কাজী খলীকুজ্জমান বলেন, অনেক সময় অনেক কাজ করা যায় পুঁজি ছাড়াই, যেমন উপদেশ। তাই পুঁজিকে কেন্দ্র না করে মানুষকেই কেন্দ্র করা উচিত। তবেই মানুষকেন্দ্রিক উন্নয়ন সম্ভব ও মানুষে মানুষে বৈষম্য কমানো সম্ভব। কারণ, প্রত্যেক মানুষই সমান। প্রত্যেকের অধিকার আছে এগিয়ে যাওয়ার।
জাহিদ হোসেন তার বক্তৃতায় বলেন, দারিদ্র্য দূরীকরণে অর্থনৈতিক উন্নয়নই যথেষ্ট নয়, যদি না তা অন্তর্ভুক্তিমূলক হয় এবং টেকসই উন্নয়নের তিনিটি মাত্রা- অর্থনৈতিক, সামাজিক ও পরিবেশকে সংযুক্ত না করে। তিনি বলেন, বৈশ্বিক অসমতা সকল দেশের নাগরিকদের মধ্যে অসমতা শিল্পবিপ্লব থেকে শুরু করে ১৯৮০-এর দশকজুড়ে বেড়েছে।