মিয়ানমারের ওপর আরও চাপ দিন -রুশনারা আলী

প্রকাশ: ১৫ অক্টোবর ২০১৭

সমকাল ডেস্ক


রোহিঙ্গাদের ওপর চলমান মিয়ানমার সেনাবাহিনীর জাতিগত নিধনযজ্ঞ থামাতে মিয়ানমারের ওপর আরও চাপ বাড়াতে যুক্তরাজ্যের আইনপ্রণেতাদের প্রতি জোর আহ্বান জানিয়েছেন বিরোধীদলীয় ব্রিটিশ এমপি রুশনারা আলী। রোহিঙ্গাদের প্রতি সহযোগিতার লক্ষ্যে সম্ভাব্য সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণে যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট দেশটির তেরেসা মের নেতৃত্বাধীন টোরি সরকারকে চাপ দেওয়া অব্যাহত রাখবে বলেও মন্তব্য করেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এ এমপি।
গতকাল শনিবার বিরোধী দল লেবারের সমর্থক লেবারলিস্টডটঅর্গ শীর্ষক একটি অনলাইন নিউজ পেজ রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে রুশনারা আলীর একটি লেখা প্রকাশ করে। ওই লেখায় তিনি বলেন, আগামী মঙ্গলবার ব্রিটিশ পার্লামেন্টের নিল্ফম্নকক্ষ হাউস অব কমন্সে রোহিঙ্গা নির্যাতনের ইস্যুতে তিন ঘণ্টাব্যাপী আলোচনা হবে। রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার জাতিগত নিধন চালাচ্ছে- জাতিসংঘের এ দাবির প্রতি ওই বৈঠকে ব্রিটিশ এমপিরা যেন সমর্থন জানান, এরই মধ্যে সে আহ্বান জানানো হয়েছে।
অবর্ণনীয় এ মানবিক সংকট প্রসঙ্গে রুশনারা তার লেখায় আরও বলেন, যেভাবেই হোক গুরুতর এ মানবাধিকার লগ্ধঘনের ইতি টানা সবচেয়ে জরুরি। এ লক্ষ্যে মিয়ানমার সেনাবাহিনী এবং দেশটির কার্যত রাষ্ট্রপ্রধান অং সান সু চির ওপর সমানভাবে চাপ অব্যাহত
রাখতে হবে।
কয়েক সপ্তাহ আগে জাতিসংঘ রাখাইনে সেনাবাহিনীর নৃশংস অভিযানকে জাতিগত নিধনের আদর্শ উদাহরণ বলে অভিহিত করে। এর অঙ্গ সংস্থা মানবাধিকার কমিশনের প্রধান জেইদ রাদ আল হুসেইন একে মানবাধিকারবিরোধী অপরাধের শামিল বলে মন্তব্য করেন। পরে তাদের দাবি প্রতিষ্ঠা করতে রাখাইন রাজ্য থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা ৫৬৫ জন রোহিঙ্গার সাক্ষাৎকার এবং রোহিঙ্গাদের শত শত গ্রাম পুড়িয়ে দেওয়ার স্যাটেলাইট ইমেজের ভিত্তিতে অনেক তথ্য-প্রমাণ হাজির করে জাতিসংঘ। গত সপ্তাহের বুধবার এ নিয়ে একটি প্রতিবেদনও প্রকাশ করে তারা। সেখানে রোহিঙ্গা শরণার্থীরা জাতিসংঘের প্রতিবেদন সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তাদের জানায়, রাখাইনে নৃশংস হামলা পূর্বপরিকল্পিত এবং পদ্ধতিগত।
ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, রোহিঙ্গাদের মিয়ানমার থেকে তাড়িয়ে দিতে এবং নিজেদের ঘরবাড়িতে যেন কখনও ফিরতে না পারে সে লক্ষ্যেই দেশটির সেনাবাহিনী নৃশংস অভিযান চালাচ্ছে। গত ২৫ আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত প্রাণ বাঁচাতে সাড়ে পাঁচ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে।