কাপাসিয়ায় নিখোঁজের ৫ দিন পর কৃষকের লাশ উদ্ধার

প্রকাশ: ১৫ অক্টোবর ২০১৭

কাপাসিয়া (গাজীপুর) প্রতিনিধি


কাপাসিয়া উপজেলার হাইলজোর গ্রামের কৃষক আবুল কালাম ওরফে কামাল নিখোঁজের পাঁচ দিন পর তার ক্ষতবিক্ষত লাশ গজারি বন থেকে শনিবার পুলিশ উদ্ধার করেছে। এ হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে নিহতের স্ত্রী, স্ত্রীর প্রেমিক আলম ও শাশুড়িকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, উপজেলার হাইলজোর পূর্বপাড়া গ্রামের দরিদ্র কৃষক আবুল কালাম গত ৯ অক্টোবর রাতে স্ত্রী লাভলী ও ছেলেমেয়েসহ পার্শ্ববর্তী বড়হড় মারুলিয়াপাড়ায় তার শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে যান। ওই রাতেই কামাল নিখোঁজ হন।
পরদিন সকালে কামালের ছেলে নিজ বাড়ি ফিরে তার বাবাকে খুঁজতে থাকে এবং বড় চাচা আবদুস ছামাদের কাছে বাবার সন্ধান চায়। অনেক খোঁজাখুঁজির পর তাকে না পেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়। পাঁচ দিন পর শনিবার সকালে শ্বশুরবাড়ির উত্তর পাশের ধানক্ষেতে প্রথমে হত্যাকান্ডের আলামত পাওয়া যায় এবং পরে আধা কিলোমিটার দূরে গজারি বনের পাশে কামালের মুখ ও হাত বাঁধা অবস্থায় ক্ষতবিক্ষত লাশ পাওয়া যায়। খবর পেয়ে থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।
এ ব্যাপারে কামালের বড় ভাই আবদুস ছামাদ জানান, তার ছোট ভাই আবুল কালামের স্ত্রী লাভলীর সঙ্গে পার্শ্ববর্তী হাইলজোর ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের নাইটগার্ড চার কন্যাসন্তানের জনক আলমের পরকীয়া সম্পর্ক রয়েছে। আলম ওই গ্রামের ফাইজ উদ্দিনের ছেলে। এ নিয়ে কয়েকবার আলমের পরিবার ও কামালের শ্বশুরবাড়ির লোকজনের মধ্যে দেনদরবারও হয়েছে।
এ ব্যাপারে থানার ওসি (তদন্ত) মনিরুজ্জামান খান জানান, পাঁচ দিন আগে নিখোঁজ আবুল কালামের হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে তার স্ত্রী লাভলী আক্তার রাবি, শাশুড়ি সুমেজা বেগম ও প্রেমিক আলমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে।