নাটিকায় অধিকারের কথা বলল শিশুরা

প্রকাশ: ১৫ অক্টোবর ২০১৭

সমকাল প্রতিবেদক


শিশু অধিকার ও তাদের ইচ্ছাকে উপজীব্য করে রচিত নাটিকা 'জীবন আমার সিদ্ধান্ত আমার'। এতে অভিনয় করা শিশুরা সমাজের অন্য সব সুবিধাভোগী শিশুর চেয়ে একেবারেই আলাদা। তারা বিশেষ শিশু। গতকাল শনিবার রাজধানীর ধানমন্ডির ছায়ানট সংস্কৃতি মিলনায়তনে এ নাটিকা পরিবেশন করে দর্শক-শ্রোতাদের মুগ্ধ করে ১১ বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী শিশু। নিজেদের অধিকার নিয়ে এ নাটিকায় কথা বলেছে তারা। তুলে ধরেছে তাদের স্বপ্ন-আকাগ্ধক্ষার বিষয়গুলো। এ কারণে তাদের অভিনয়শিল্পী না বলে আখ্যা দেওয়া হয় 'সেল্কম্ফ অ্যাডভোকেট' হিসেবে।
মঞ্চে তাদের অভিনয় দেখে মুগ্ধ হন অভিভাবক ও আমন্ত্রিত অতিথিরা। তারা বলেন, সমাজের অন্য শিশুদের মতো সমান সুযোগ পেলে বিশেষ শিশুরা সুন্দর অভিনয় করতে পারে। তারই প্রমাণ এই নাটকাটি। বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্টেপস টুওয়ার্ডস ডেভেলপমেন্টের (সিড) আয়োজনে নাটিকাটি মঞ্চে আনার আগে ২০টি মহড়া করা হয়েছে। গতকালই প্রথম মঞ্চায়ন করা হয়। অভিনয় করা বিশেষ শিশুদের নিজ নিজ নামেই চরিত্র নির্বাচন করা হয়। ওরা ১১ জন হলো- সানজিদ, শিলামণি, শীলা, ইতি, রাবেয়া, জালাল, সাজেদ, শিউলি, জ্যোতি, রিমা ও সজীব।
আয়োজকরা জানান, নাটিকাটিতে অভিনয় করা বিশেষ শিশুরা সমাজের অনেক সুবিধা থেকে বঞ্চিত। বিভিন্ন স্থান থেকে জড়ো করে তাদের প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা দেওয়া হয়েছে। একদল কর্মীর সহায়তায় তাদের বিশেষ শিক্ষায় শিক্ষিত করা হচ্ছে। পাশাপাশি সুপ্ত প্রতিভা বিকাশে সাংস্কৃতিক কার্যক্রমে যুক্ত করা হচ্ছে।
নাটকের অন্যতম চরিত্র সানজিদ বলে, নাটক করতে তার খুবই ভালো লাগে। আরেক শিশু শিলামণি বলে, নাটকের মধ্য দিয়ে তারা তাদের অধিকার নিয়ে কথা বলতে চায়।
নাটকের সময়সীমা ১৫ মিনিট হলেও বিশেষ শিশুদের বক্তব্য স্পষ্ট। অন্য শিশুদের মতো তারাও সমাজে মাথা উঁচু করে বাঁচতে চায়। সমাজ তথা দেশের উন্নয়নের অংশীদার হতে চায়। নাটিকা-পরবর্তী আলোচনা সভায় বক্তারা এমন অভিমত প্রকাশ করেন। অটিস্টিক, বুদ্ধি ও বহুমাত্রিক প্রতিবন্ধী সেল্কম্ফ অ্যাডভোকেট অভিনীত নাটকের বিভিন্ন দিক এবং সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনায় অংশ নেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রতিষ্ঠান ও প্রতিবন্ধিতা) সুশান্ত কুমার প্রামাণিক, এনডিডি ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাসুদ করিম, শহর সমাজসেবা কার্যক্রম-৬-এর সমাজসেবা কর্মকর্তা কে এম শহিদুজ্জামান। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সিডের চেয়ারম্যান রঞ্জন কর্মকার।