'বন্দুকযুদ্ধে' সুন্দরগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ী নিহত গোদাগাড়ীতে গুলিবিদ্ধ আরেকজন

প্রকাশ: ০৮ আগস্ট ২০১৮      

সমকাল ডেস্ক

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ও ২৮ মামলার আসামি আবদুস ছালাম ওরফে ঠসা ছালাম (৪৮) র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে। রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ হয়েছে ইবরাহিম নামে আরেক মাদক ব্যবসায়ী।

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি জানান, সোমবার গভীর রাতে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার জামাল গ্রামের ইছলা সেতু এলাকায় ঠসা ছালাম নিহত হয়। সে উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের সাতগিরি গ্রামের শরফ উদ্দিন ওরফে শফু করাতির ছেলে।

র‌্যাব-১৩ রংপুরের একটি বিশেষ দল গোপন সংবাদে ইছলা সেতু সংলগ্ন পরিত্যক্ত একটি বাড়িতে মাদকবিরোধী অভিযান চালায়। তারা বাড়িটি ঘিরে ফেললে তাদের লক্ষ্য করে মাদক ব্যবসায়ীরা গুলি ছোড়ে। র‌্যাব পাল্টা গুলি

চালায়। এ সময় গুলিবিদ্ধ ছালামকে দ্রুত উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ওই বাড়ি থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি কার্তুজ, তিন রাউন্ড গুলি, ১০ কেজি গাঁজা ও ২০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। র‌্যাব-১৩ গাইবান্ধার সহকারী কমান্ডিং অফিসার এএসপি হাবিবুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এ ঘটনায় র‌্যাবের এসআই সুবীর বিক্রম দে বাদী হয়ে সুন্দরগঞ্জ থানায় মামলা করেছেন।

গোদাগাড়ী (রাজশাহী) প্রতিনিধি জানান, সোমবার গভীর রাতে গোদাগাড়ীর সাহাব্দিপুর এলাকায় 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত হয় ইবরাহিম। সে গোদাগাড়ী পৌরসভার মহিষালবাড়ি এলাকার ইসরাফিলের ছেলে।

রাজশাহী জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুর রাজ্জাক খান জানান, মাদক কেনাবেচার খবর পেয়ে গোদাগাড়ী থানা পুলিশের একটি দল সাহাব্দিপুর এলাকার একটি ইটভাটার কাছে অভিযান চালায়। এ সময় মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষায় পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। কয়েক মিনিট গোলাগুলির পর কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ী পালিয়ে গেলেও আহত অবস্থায় পড়ে থাকে ইবরাহিম। তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আরও জানান, ইবরাহিমের বিরুদ্ধে থানায় মাদক-সংক্রান্ত দুটি মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ম্যাগাজিন, পাঁচ রাউন্ড গুলিসহ একটি বিদেশি

পিস্তল এবং ৫০০ গ্রাম হেরোইন জব্দ করা হয়েছে।