কক্সবাজারে প্রতিনিধি দল রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে কাজ করছে ওআইসি

প্রকাশ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

কক্সবাজার অফিস

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ত্বরান্বিত এবং সংকটের স্থায়ী সমাধান করতে ওআইসিভুক্ত দেশগুলোকে আরও জোরালো ভূমিকা রাখতে হবে। এই লক্ষ্য নিয়েই কাজ করছে ওআইসির সদস্য দেশগুলো। গতকাল বুধবার দুপুরে কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ

কথা বলেন ওআইসি সংসদীয় প্রতিনিধি দলের নেতা এম জুহামেদ কুরাইশি নিয়াজ।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশের সঙ্গে মিয়ানমারের দ্বিপক্ষীয় চুক্তি হয়েছে তা একটি ভালো দিক। তবে মিয়ানমারের আন্তরিক ইচ্ছার ওপর এই সংকটের সমাধান নির্ভর করছে। এ বিষয়ে মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের চাপ বাড়াতে হবে। যেসব মুসলিম দেশের সঙ্গে মিয়ানমারের সম্পর্ক ভালো রয়েছে, তাদেরও এই সংকট সমাধানে এগিয়ে আসতে হবে।

তিনি বলেন, ক্যাম্প পরিদর্শনে এসে এবং রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলে যে অবস্থা দেখেছি, তা সত্যিই মর্মান্তিক। বোঝা যায়, মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর বর্বর নির্যাতন হয়েছে। আমাদের অবশ্যই নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের পাশে এসে দাঁড়াতে হবে এবং তাদের সাহায্যে এগিয়ে আসতে হবে।

ওআইসির সংসদীয় প্রতিনিধি দল সকালে

কক্সবাজার বিমানবন্দর হয়ে সরাসরি ঘুমধুম ট্রানজিট ক্যাম্প পরিদর্শনে যায়। সকাল সাড়ে ১১টার দিকে উখিয়ার কুতুপালং নিবন্ধিত রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ইউএনএইচসিআরের ট্রানজিট সেন্টার পরিদর্শন করেন। সেখানে নির্যাতত কিছু রোহিঙ্গার সঙ্গে কথা বলেন তারা।

এ ছাড়া উখিয়ার কুতুপালং ডি-৪ ব্লকে অবস্থিত ইউএনএইচসিআর, ইউএনএফপি, ইউএনডিপিসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার নারী ও শিশুবান্ধব কেন্দ্র পরিদর্শন করে নির্যাতিতদের সঙ্গে কথা বলেন। পরে দুপুর ২টার দিকে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ডি-৫ ব্লকের ইউএনএইচসিআরের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। বিকেলে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হয় প্রতিনিধি দল।

প্রতিনিধি দলে রয়েছেন, ওআইসির ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল আলী আজগর মোহাম্মদী সিজানি, ডাইরেক্টর অব কনফারেন্স জাহিদ হাসান কুরাশি, ইরানের সংসদ সদস্য সৈয়দ হিমায়েত মিরজাদি, মোহাম্মদ হোসাইন কর্ডলু, তুরস্কের হেড অব ডেলিগেশন ওরহান অ্যাটালাই, মমতাজ জারনি, মালয়েশিয়ার ডেপুটি স্পিকার রশিদ বিন হাসনুন, মহসীন বিন আবদুল মালেক, আলজেরিয়ার সংসদ সদস্য ইউসেফ এডজিসা, সুদানের ওমর ইবনে দুউদ, মাহামুদু ডিজুগা ডিজুদ্দি, ইসাখা ইসা ইউছুপ, আল হাসান মোহাম্মদ, অসীম উমর আহমেদ আদনান, মোক্তার আহমদ, মাহজুমা হাসান মুসা, আবদেল রহমান হোসাইন, মরক্কোর মোহাম্মদ ওজ্জিন, বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব স্বর্ণালী ছন্দাসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার প্রতিনিধিরা।

এদিকে আন্তর্জাতিক রেড ক্রস ও মিয়ানমার রেড ক্রসের একটি যৌথ টিম গতকাল সকালে তুমব্রু সীমান্তের শূন্যরেখায় আসে। কাঁটাতারের বেড়ার ওপাশে দাঁড়িয়ে আট সদস্যের এই দলটি এপাশে থাকা রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলে। এ সময় দলটি রোহিঙ্গাদের খাদ্য, শিক্ষা ও চিকিৎসা সহায়তা দেওয়ার প্রস্তাব দেয়। কিন্তু রোহিঙ্গারা জানায়, তাদের এসব সহযোগিতার দরকার নেই; তারা বরং নিরাপদে মিয়ানমারে নিজ বাড়িতে ফিরতে চায়।

ওই ক্যাম্পের রোহিঙ্গা মাঝি দিল মোহাম্মদ জানান, দলটি তাদের মিয়ানমারে ফেরাতে কোনো আশ্বাস দিতে পারেনি।
উত্তাপের সঙ্গে মিশে আছে উত্তেজনাও

উত্তাপের সঙ্গে মিশে আছে উত্তেজনাও

সারাদেশের ৩০০ নির্বাচনী এলাকার মধ্যে ঢাকা-১ আসন সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম। ঢাকা ...

সরব এশিয়া-ইউরোপ

সরব এশিয়া-ইউরোপ

পাকিস্তান সেনাবাহিনীর গণহত্যা ও নৃশংসতায় বিক্ষুব্ধ হয়ে ইউরোপ ও এশিয়ার ...

তারাই আমাদের বাতিঘর

তারাই আমাদের বাতিঘর

আবার এসেছে ফিরে ডিসেম্বর। শোক, শক্তি ও সাহসের মাস, আমাদের ...

মর্মন্তুদ সেই দিন আজ

মর্মন্তুদ সেই দিন আজ

'আজ এই ঘোর রক্ত গোধূলিতে দাঁড়িয়ে/ আমি অভিশাপ দিচ্ছি তাদের/ ...

রাজনীতিবিদরা কি হারিয়ে যাবেন

রাজনীতিবিদরা কি হারিয়ে যাবেন

পরিসংখ্যান অনেক সময় নির্মম, যেমন পানিতে ডুবে মারা যাওয়া শিশুদের, ...

ব্যবসায়ীদের হাতেই এখন নাটাই

ব্যবসায়ীদের হাতেই এখন নাটাই

গত ৬ অক্টোবর ২০১৮ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫১তম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে মহামান্য ...

নির্বাচন উদ্দীপনার নাকি আশঙ্কার

নির্বাচন উদ্দীপনার নাকি আশঙ্কার

২০১৪ সালে যেমন কোনো বিকল্প ছিল না, এই ২০১৮-তেও তেমনি ...

তোমার আমার মার্কা...

তোমার আমার মার্কা...

বিষণ্ণ মনে সোফায় বসে পেপার পড়ছিলেন বাবা। ক্লাস নাইনে পড়া ...