ধর্ষণের বিচারে নাকে খত

সোনাগাজীতে ইউপি সদস্যসহ গ্রেফতার ৫

প্রকাশ: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফেনী

ফেনীর সোনাগাজীতে এক কিশোরীকে গণধর্ষণে জড়িত চার বখাটেকে নাকে খত দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার পর মঙ্গলবার রাতে সালিশের বিচারক বগাদানা ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য ও ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি মাঈন উদ্দিনসহ ৪ ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোনাগাজী থানার ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, গত সোমবার উপজেলার চরসাহা ভিকারি গ্রামের আলমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে দরিদ্রদের সহায়তার ১০ টাকা কেজি দরের চাল কিনে বাড়ি ফিরছিল ওই কিশোরী। এ সময় স্থানীয় বখাটে জয়নাল আবেদীন, নজরুল ইসলাম ও আনোয়ার হোসেন মেয়েটিকে মুখ চেপে ধরে পার্শ্ববর্তী জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে কিশোরী অচেতন হয়ে পড়লে বখাটেরা তাকে একটি সিএনজি অটোরিকশায় তুলে দিয়ে পালিয়ে যায়। এ সময় অটোরিকশা চালক আলমগীর ওই কিশোরীকে একটি নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। কিশোরীর জ্ঞান ফিরলে আলমগীর তাকে ফেলে পালিয়ে যায়। মেয়েটি বাড়ি এসে পরিবারের সদস্যদের ঘটনা জানালে তার বাবা স্থানীয় ইউপি সদস্য মাঈন উদ্দিনকে বিষয়টি জানান। এর পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার বিকেলে ইউপি সদস্য মাঈন উদ্দিন সালিশের মাধ্যমে তিন ধর্ষককে ডেকে নাকে খত দিয়ে ছেড়ে দেন। এ সময় নির্যাতিতার বাবাকে বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি না করার জন্যও শাসান তিনি।

ওসি মোয়াজ্জেম আরও জানান, মঙ্গলবার রাতে নির্যাতিতার বাবা থানায় এসে তিন ধর্ষক, অটোরিকশা চালক ও ইউপি সদস্য মাঈন উদ্দিনের নাম উল্লেখসহ কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করেন। রাতেই পুলিশ অভিযান চালিয়ে মাঈন উদ্দিনসহ চার ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে। আসামিদের গতকাল আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।