সুবর্ণচরে গণধর্ষণ

স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি আরও দুই আসামির

প্রকাশ: ১১ জানুয়ারি ২০১৯

নোয়াখালী প্রতিনিধি

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে স্বামী-সন্তানদের বেঁধে গৃহবধূকে গণধর্ষণ ও নির্যাতনের ঘটনায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে মামলার এজাহারভুক্ত দুই আসামি। গতকাল বৃহস্পতিবার জেলা জজ আদালতের ২নং আমলি আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম নবনীতা গুহ ওই জবানবন্দি গ্রহণ করেন।

স্বীকারোক্তি দানকারীরা হলো মামলার এজাহারভুক্ত ৩ নম্বর আসামি মো. স্বপন (৪২) ও ৫ নম্বর আসামি ইব্রাহিম খলিল ওরফে বেচু (২৫)। এ নিয়ে গ্রেফতার ১০ আসামির ছয়জনই আদালতে স্বীকারোক্তি দিলো।

নোয়াখালী জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ওসি আবুল খায়ের জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে আসামি ইব্রাহিম খলিল বেচু ও স্বপন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে চায়। ওই সময় তাদের আদালতে পাঠায় পুলিশ। রিমান্ডে থাকা অন্য আসামিদের ডিবি কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে বলে জানান মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির

পরিদর্শক জাকির হোসেন।

গত ৩০ ডিসেম্বর মধ্যরাতে নোয়াখালীর সুবর্ণচরের চরজুবলি ইউনিয়নে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা (বহিস্কৃত) রুহুল আমিনের নেতৃত্বে ১০-১২ জন ওই নারীর বাড়িতে হামলা চালায়। তারা বসতঘরের দরজা ভেঙে স্বামী-সন্তানদের বেঁধে গৃহবধূকে ধর্ষণ ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে ৩১ ডিসেম্বর রাতে ৯ জনের নাম উল্লেখ করে চরজব্বর থানায় মামলা করেন। এ মামলায় এখন পর্যন্ত ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতার করতে একাধিক টিম মাঠে রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।