বিশ্বব্যাংকের তথ্য

২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে অতিদারিদ্র্যমুক্ত

প্রকাশ: ১১ জানুয়ারি ২০১৯

সমকাল ডেস্ক

বর্তমান বিশ্বে অতি দরিদ্র মানুষের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি মোট পাঁচটি দেশে। এগুলো হলো- ভারত, নাইজেরিয়া, কঙ্গো, ইথিওপিয়া ও বাংলাদেশ। তবে অর্থনৈতিক অগ্রগতির হার থেকে বলা যায়, ২০৩০ সালের মধ্যে ভারত ও বাংলাদেশে অতি দারিদ্র্য শূন্যে নেমে আসবে। বাকি তিনটি

দেশের পরিস্থিতি অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

বুধবার বিশ্বব্যাংকের ওয়েবসাইটে এক নিবন্ধে এসব তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। এতে বলা হয়, ২০১৫ সালে বিশ্বে অতিদারিদ্র্যের সংখ্যা ছিল ৭৩ কোটি ৬০ লাখ। এর মধ্যে ৩৬ কোটি ৮০ লাখ তথা মোট সংখ্যার অর্ধেকের বসবাস ছিল এই পাঁচটি দেশে। যেসব মানুষের দৈনিক আয় এক ডলার ৯০ সেন্টের চেয়ে কম (১৫৮ টাকা), তাদের অতি দারিদ্র্য হিসেবে ধরা হয়।

গত সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশের তৎকালীন পরিকল্পনামন্ত্রী (বর্তমানে অর্থমন্ত্রী) আ হ ম মুস্তফা কামাল জানান, ২০১৮ সালে দেশে সার্বিক দারিদ্র্যের হার ২১ দশমিক ৮ শতাংশে নেমে এসেছে। আর অতিদারিদ্র্যের হার নেমেছে ১১ দশমিক

৩ শতাংশে।

বিশ্বব্যাংকের নিবন্ধে বলা হয়, অতিদারিদ্রের হার ২০৩০ সালের মধ্যে কমিয়ে তিন ভাগের নিচে নামিয়ে আনতে বিশ্বব্যাপী টার্গেট নির্ধারণ করা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য কর্মকাণ্ড পরিচালিত হচ্ছে। এই পাঁচটি দেশের দারিদ্র্যকে কমিয়ে আনা গেলে তা হবে ওই লক্ষ্য পূরণের ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তবে সাব-সাহারান আফ্রিকার মতো একটি অঞ্চল বাদে সারাবিশ্ব থেকে অতিদারিদ্র্য প্রায় নির্মূল হলেও বিশ্বকে দারিদ্র্যমুক্ত বলা সম্ভব নয়।