রাজধানীর বাসে ভাড়া বাড়ানোর নোটিশ

প্রকাশ: ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯      

বিশেষ প্রতিনিধি

রাজধানীতে আবারও গায়ের জোরে বাস ভাড়া বাড়ানো হচ্ছে। এরই মধ্যে আজিমপুর-বেড়িবাঁধ রুটের বাসে আগামীকাল রোববার থেকে ভাড়া বাড়ানোর নোটিশ টানিয়ে দেওয়া হয়েছে। নোটিশ অনুযায়ী চেক পয়েন্ট অনুযায়ী ৫ টাকা হারে ভাড়া বাড়বে। যদিও এই ভাড়া বৃদ্ধির খবর জানেন না বলে সমকালকে জানিয়েছেন ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েতুল্লাহ।

সরেজমিন দেখা যায়, রাজধানীর আজিমপুর থেকে টঙ্গী বেড়িবাঁধের ভেতর চলাচল করা বিকাশ পরিবহনের বাসে ভাড়া বৃদ্ধির নোটিশ দেখা যায়। গাড়িতে টানানো নোটিশে বলা হয়, 'আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি থেকে মহাখালী থেকে আব্দুল্লাপুর পর্যন্ত ভাড়া ২০ টাকা নির্ধারিত হবে।' এর আগে এই ভাড়া ছিল ১৫ টাকা।

নিয়মিত যাত্রীরা জানান, রাজধানীর আজিমপুর-উত্তরা রুটে চলাচল করা বিকাশ পরিবহন এবং ভিআইপি বাসের ভাড়াই এ মুহূর্তে সব রুটের চেয়ে বেশি। বিকাশ পরিবহনে আজিমপুর থেকে বনানী পর্যন্ত যে কোনো গন্তব্যের জন্য সর্বনিম্ন ২৫ টকা ভাড়া নেওয়া হয়। আজিমপুর থেকে উত্তরা পর্যন্ত যে কোনো গন্তব্যে ৪০ টাকা এবং মহাখালী থেকে উত্তরা পর্যন্ত যে কোনো গন্তব্যে ১৫ টাকা ভাড়া নেওয়া হয়। বিকাশ পরিবহনের পরিবহন কর্মচারীরা জানান, ১৫ টাকার স্থলে ২০ টাকা হওয়ার কারণে ৪০ টাকার ভাড়া রোববার থেকে ৪৫ টাকা এবং ২৫ টাকার ভাড়া ৩০ টাকা হয়ে যাবে। অর্থাৎ, প্রতি চেক পয়েন্ট হিসেবে ৫ টাকা করে ভাড়া বাড়বে। সরেজমিন দেখা যায়, এ বাসে কোনো ধরনের টিকিট দেওয়া হয় না। সিটিং সার্ভিসের কথা বলা হলেও দাঁড়িয়ে যাত্রী পরিবহন করা হয়। অধিকাংশ বাসও অপরিচ্ছন্ন এবং দুর্গন্ধময়। যাত্রীদের জোর করে ইঞ্জিন কাভারেও বসানো হচ্ছে।

যাত্রীরা জানান, আজিমপুর থেকে গাজীপুরে চলাচল করা ভিআইপি বাসটি গত নভেম্বর পর্যন্ত কাউন্টার সার্ভিস হিসেবে চলাচল করত। এ বাসে আগে উত্তরা থেকে আজিমপুর পর্যন্ত যে কোনো গন্তব্যের জন্য ৪০ টাকা এবং আজিমপুর থেকে উত্তরার দিকে যে গন্তব্যের জন্য সর্বনিম্ন ৫০ টাকা ভাড়া ছিল। গত ডিসেম্বর থেকে এ সার্ভিসে কাউন্টার তুলে দিয়ে বিকাশ পরিবহনের আদলে ভাড়া নেওয়া হচ্ছে, যাত্রীদের কোনো টিকিটও দেওয়া হচ্ছে না। যাত্রীরা জানান, আগে ভিআইপি পরিবহনে বেশকিছু উন্নতমানের বাস থাকলেও সেগুলো তুলে দিয়ে এখন বিকাশের মতোই নিম্নমানের বাস চালু করা হয়েছে। আজিমপুর-উত্তরা রুটে এ দুটি সার্ভিসের বাইরে আর কোনো বাস সার্ভিস চলাচল করে না। এক সময় উন্নতমানের এসি সার্ভিস বেভকো চলাচল করলেও আরও অনেক আগেই সার্ভিসটি বন্ধ হয়ে গেছে।

সরেজমিন খোঁজ নিয়ে আরও দেখা যায়, রাজধানীতে অবৈধ চেক পয়েন্ট ব্যবস্থায় প্রথম ভাড়া নির্ধারিত হয় এই বিকাশ পরিবহনের বাসেই। পরে এ ব্যবস্থা রাজধানীর অন্য সব রুটের বাসেও চালু হয়। এখন বিকাশ পরিবহনে ৫ টাকা ভাড়া বৃদ্ধির কারণে পরবর্তী সময়ে সব রুটের বাস ভাড়া বাড়বে বলে জানায় পরিবহন সংশ্নিষ্ট সূত্র।

.

এ ব্যাপারে বিকাশ পরিবহনের নোটিশে দেওয়া ফোন নম্বরে যোগাযোগ করা হলে একজন ফোন ধরে ভাড়া বৃদ্ধির নোটিশের বিষয়টি স্বীকার করেন। তবে বাস সার্ভিসে তার পরিচয় জানতে চাইলে তিনি মিটিংয়ে আছেন বলে ফোন কেটে দেন। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েতুল্লাহ সমকালকে বলেন, এ মুহূর্তে মালিক সমিতির পক্ষ থেকে বাস ভাড়া বাড়ানোর কোনো পরিকল্পনা কিংবা সিদ্ধান্ত কোনোটিই নেই। বিকাশ পরিবহনে বাস ভাড়া বাড়ানোর নোটিশের বিষয়ে তিনি জানেন না বলেও জানান।