মরিচের গুঁড়া ও দায়ের কোপে রক্ষা

প্রকাশ: ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯      

নোয়াখালী প্রতিনিধি

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার ধানশালিক ইউনিয়নে বন্ধুর স্ত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় এক যুবক। এ সময় যুবককে দা দিয়ে কুপিয়ে ও মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে আত্মরক্ষা

করেন গৃহবধূ। আহত মানিক ইউনিয়নের চরগুল্লাখালী গ্রামের আবদুল হাইয়ের ছেলে।

এ ঘটনায় গৃহবধূ গতকাল শুক্রবার কবিরহাট থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ চিকিৎসারত অবস্থায় বসুরহাটের একটি হাসপাতাল থেকে মানিককে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতের মাধ্যমে বিকেলেই তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় লোকজন ও থানা সূত্রে জানা যায়, গৃহবধূর ট্রাকচালক স্বামী চট্টগ্রামে থাকেন। পারিবারিক বিষয় নিয়ে কিছুদিন ধরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মনোমালিন্য চলছিল। স্বামীর সঙ্গে আবার স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে দেওয়ার কথা বলে মানিক কয়েকদিন আগে গৃহবধূকে বসুরহাটে এক কবিরাজের কাছে নিয়ে যায়। কবিরাজের একটি তাবিজ দেওয়ার জন্য সে বৃহস্পতিবার রাতে গৃহবধূর বাড়ি যায়। কথা বলার একপর্যায়ে গৃহবধূর মুখে বালিশচাপা দিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় মানিক। এ সময় গৃহবধূ আত্মরক্ষার্থে হাতের কাছে থাকা মরিচের গুঁড়া তার মুখে ছুড়ে মারেন এবং দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর আহত করেন। মানিকের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করে।

কবিরহাট থানার ওসি মীর্জা মোহাম্মদ হাছান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মানিক ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ অস্বীকার করেছে। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে।