মামলার রায়ের নথি হাইকোর্টে

প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

সিলেট ব্যুরো

সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্র শিশু মোস্তাফিজুর রহমান ইমন হত্যা মামলায় চার আসামির ফাঁসির আদেশসহ সম্পূর্ণ নথি হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার বরাবরে পাঠানো হয়েছে। গতকাল সোমবার নথিপত্র রেজিস্ট্রার দপ্তরে পৌঁছেছে বলে আদালত সূত্রে জানা গেছে। এর আগে সিলেটের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. রেজাউল করিম রায়ের নথি হাইকোর্টে পাঠানোর নির্দেশ দেন। আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট কিশোর কুমার কর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মামলার রায়ের সব নথিপত্র পাঠানো হয়েছে।

হত্যা, অপহরণ ও লাশ গুমের অভিযোগে  গত ৪ ফেব্রুয়ারি আলোচিত ওই মামলায় দুই জামায়াত নেতাসহ চার আসামির ফাঁসির আদেশ দেন মো. রেজাউল করিম। ফাঁসির আদেশপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- ছাতকের ছৈলা-আফজলাবাদ ইউনিয়নের জামায়াতের সেক্রেটারি ও ব্রাহ্মণজুলিয়া গ্রামের মখলিছ মিয়ার ছেলে বাতিরকান্দি মসজিদের ইমাম শুয়াইবুর রহমান সুজন, বাতিরকান্দি গ্রামের আবদুল মুক্তাদিরের ছেলে রফিকুল ইসলাম রফিক, নোয়ারাই ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড জামায়াতের সভাপতি বাতিরকান্দি গ্রামের আবদুস ছালামের ছেলে জাহেদুর রহমান ও একই গ্রামের আবদুল কবিরের ছেলে সালেহ আহমদ। এর মধ্যে সালেহ আহমদ ঘটনার পর থেকেই পলাতক।

ছাতক উপজেলার নোয়ারাই ইউনিয়নের বাতিরকান্দি গ্রামের সৌদি প্রবাসী জহুর আলীর ছেলে ও লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট কারখানার কমিউনিটি বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেণির ছাত্র মোস্তাফিজুর রহমান ইমনকে ২০১৫ সালের ২৭ মার্চ অপহরণ করা হয়। ওই দিন বিকেলে সে বাড়ির পাশে খেলা করছিল। মুক্তিপণের দুই লাখ টাকার মধ্যে এক লাখ ৩০ হাজার টাকা পাওয়ার পরও অপহরণকারীরা শিশু ইমনকে হত্যা করে।