দিনাজপুরে অদ্ভুত শিশু

প্রকাশ: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

দিনাজপুর প্রতিনিধি

দিনাজপুরে অদ্ভুত শিশু

সোমবার দিনাজপুরে জন্ম নেওয়া তিন মাথাকৃতির কন্যাশিশু- সমকাল

দিনাজপুরে প্রায় সাড়ে ৮ মাস মায়ের গর্ভে থাকার পর অস্বাভাবিক অবস্থায় তিন মাথাকৃতির এক কন্যাশিশুর জন্ম হয়েছে। শিশুটিকে বর্তমানে ইনকিউবেটরে অক্সিজেন দিয়ে রাখা হয়েছে। তবে মা ও শিশু দু'জনই সুস্থ আছে। চিকিৎসকরা বলছেন, এটা কনজিনটাল অ্যাবনরমালিটি (জন্মগত অস্বাভাবিকতা)।

গতকাল সোমবার দুপুর ১২টায় দিনাজপুর এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সিজারিয়ান অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে শিশুটির  জন্ম হয়। শিশুটির ওজন তিন কেজি। শিশুটির চোখের ভ্রু নেই। বড় বড় দুটি চোখ, যা এখনও ফোটেনি। মাথার দুই পাশের দুটি অংশে যথারীতি কান থাকলেও তা নিচে এবং কিছুটা পেছনের দিকে। দুই চোখের মাঝ বরাবর নাক থাকলেও তা অস্বাভাবিক রকমের ছোট।

নবজাতকটি দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার নতুন বাজার গুলপাড়া এলাকার জয়নব বানু ও রিয়াজুল ইসলাম দম্পতির। রিয়াজুল ইসলাম জানান, তিনি ঢাকায় একটি গার্মেন্টে চাকরি করেন। এটি তাদের দ্বিতীয় সন্তান। বড় ছেলের বয়স সাত বছর। স্ত্রী জয়নবকে নিয়মিত চিকিৎসা করাতেন এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনি চিকিৎসক ডা. শাবরিন আখতারের কাছে। চিকিৎসক আল্ট্রাসনোগ্রাম করানোর পরামর্শ দেন। রিপোর্ট দেখার পরে মাথার মধ্যে সামান্য সমস্যা দেখা যাচ্ছে বলে চিকিৎসক সিজার করার কথা বলেন।

নবজাতকের নানি জমিলা বেগম জানান, ছয় মাস বয়স থেকেই ব্যথা না থাকলেও মেয়ের পেট অস্বাভাবিকভাবে বড় হয়ে যাচ্ছিল। ডাক্তারের পরামর্শে রোববার তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল সিজার করা হয়েছে।

হাসপাতালের কর্তব্যরত ডা. শরিফুন নাহার প্রিয়া জানান, এটা কনজিনটাল অ্যাবনরমালিটি। শিশুটির চোখের এখনও উন্নয়ন হয়নি। নির্দিষ্ট সময়ের আগেই শিশুটির জন্ম হয়েছে, তার হার্টও ডানদিকে। শিশুটিকে যথাযথভাবে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।