ঢাকা-কলকাতা জাহাজ সার্ভিস বাণিজ্যিকভাবে যাত্রী পরিবহন শুরু এপ্রিলে

প্রকাশ: ১৫ মার্চ ২০১৯      

বরিশাল ব্যুরো

ঢাকা থেকে কলকাতা পর্যন্ত নৌপথে জাহাজ সার্ভিস অবশেষে শুরু হতে যাচ্ছে। রাষ্ট্রীয় নৌযান সংস্থা বিআইডব্লিউটিসির নিজস্ব জাহাজ এমভি মধুমতি বরিশাল ও মোংলা হয়ে ঢাকা-কলকাতা নৌপথে চলবে। জাহাজটি সুন্দরবনের ভেতর দিয়ে যাতায়াতকালে যাত্রীরা সেখানকার সৌন্দর্য উপভোগেরও সুযোগ পাবেন। মধুমতি আগামী ২৯ মার্চ পরীক্ষামূলকভাবে কলকাতায় রওনা হবে। এ যাত্রা সফল হলে এপ্রিলের পর বাণিজ্যিকভাবে যাত্রী পরিবহন শুরু করবে। বিআইডব্লিউটিসির একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে।

বিআইডব্লিউটিসির নতুন এ রুটের দেখভালের দায়িত্বে আছেন সংস্থার উপমহাব্যবস্থাক শাহ খালেদ নেওয়াজ। তিনি সমকালকে বলেন, পরীক্ষামূলক যাত্রা হিসেবে আগামী ২৯ মার্চ এমভি মধুমতি নারায়ণগঞ্জের পাগলা স্টেশন থেকে কলকাতায় রওনা হবে। ৪৮ ঘণ্টা যাত্রা করে সেটি কলকাতায় পৌঁছবে। পরীক্ষামূলক যাত্রা সফল হলে যাত্রীর চাহিদা অনুযায়ী জাহাজের যাত্রাসূচি নির্ধারণ করা হবে। সুবিধাজনক সময় অনুযায়ী এ রুটটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে। এসব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে পুরো এপ্রিল মাস লেগে যাবে বলে শাহ খালেদ নেওয়াজ জানান। এ কর্মকর্তা আরও জানান, যাত্রীদের ইমিগ্রেশন কার্যক্রম সম্পন্ন হবে সুন্দরবন এলাকা অতিক্রম করার পর বাংলাদেশের জলসীমা আন্টিহারা নামক স্থানে।

বিআইডব্লিউটিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম মিশা সমকালকে বলেন, ভারত ও বাংলাদেশের নৌচুক্তির আওতায় দু'দেশের মধ্যে যাত্রীবাহী নৌযান চলাচল করার সিদ্ধান্ত হয় গত বছর।

সংস্থাটির কর্মকর্তারা জানান, এমভি মধুমতি জাহাজটির ধারণ ক্ষমতা ৭৫০ জন।

ঢাকা-বরিশাল-মোংলা-কলকাতা রুটে জাহাজ সার্ভিস চালুর উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন বরিশালের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের সচিব অধ্যাপক বিপ্লব কুমার ভট্টাচার্য্য বলেন, ঢাকা-বরিশাল-কলকাতা স্টিমার সার্ভিস একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ।

সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের বরিশাল জেলার সাধারণ সম্পাদক কাজী এনায়েত হোসেন শিবলু বলেন, এর ফলে বরিশালের সঙ্গে কলকাতার সামাজিক সংযোগ দৃঢ় হবে। বরিশালের পরিচিতিও বাড়বে।