শ্যামপুরে স্যুয়ারেজ লাইনে বিস্ম্ফোরণে প্রাণ গেল শিশুর

প্রকাশ: ১২ জুন ২০১৯

সমকাল প্রতিবেদক

রাজধানীর শ্যামপুরে স্যুয়ারেজ লাইনে বিস্ম্ফোরণে প্রাণ হারিয়েছে সাত বছর বয়সী এক শিশু। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন শিশুটির মা-বোনসহ অন্তত তিনজন। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মুন্সীবাড়ী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত শিশুটির নাম আবীর হোসেন। সে স্থানীয় একটি স্কুলের প্রথম শ্রেণির ছাত্র ছিল। তার বাবা পেশায় সেলুনকর্মী। গতকাল নানাবাড়ি থেকে ফেরার পথে এ দুর্ঘটনায় পড়ে আবীর। বিস্ম্ফোরণে আহতরা হলেন আবীরের মা মনোয়ারা বেগম (৩০), বোন আদিবা আক্তার (১০) এবং ভ্যানচালক রুবেল (৩০)। আহতদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মুন্সীবাড়ী তিন রাস্তার মোড় দিয়ে লোকজন হেঁটে যাচ্ছিলেন। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সেখানে বিকট শব্দে বিস্ম্ফোরণ ঘটে। এতে স্যুয়ারেজ লাইনের ম্যানহোলের একটি লোহার ঢাকনা এবং আশপাশের মাটি ও রাস্তার কংক্রিটও চারদিকে ছড়িয়ে যায়। এতে হতাহতের ঘটনা ঘটে।

চিকিৎসকদের উদ্ৃব্দত করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানান, আহত অবস্থায় চারজনকে হাসপাতালে আনা হয়। তাদের শরীরের বিভিন্ন স্থানে স্পিল্গন্টারের আঘাতের মতো চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, স্যুয়ারেজ লাইন বিস্ম্ফোরণের পর রাস্তার কংক্রিটের সুরকি উড়ে এসে তাদের শরীরে লাগে। শিশুটির মাথায় আঘাত লেগেছিল। চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত পৌন ৮টার দিকে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আবীরের খালা আঁখি আক্তার জানান, আবীর তার মা-বাবার সঙ্গে ধূপখোলার বাসায় থাকে। গতকাল সকালে জুরাইনে নানাবাড়িতে বেড়াতে এসেছিল সে। সন্ধ্যায় বাসায় ফেরার পথে দুর্ঘটনার শিকার হয় তারা। বিস্ম্ফোরণের সময় আঁখিও ঘটনাস্থলে ছিলেন। বোন ও ভাগ্নে-ভাগ্নিদের এগিয়ে দিতে যাচ্ছিলেন তিনি। অন্য তিনজনের চেয়ে একটু পিছিয়ে থাকায় বিস্ম্ফোরণে তার কিছু হয়নি।

আহত রুবেল জানান, তিনি ওই পথ দিয়ে যাওয়ার সময় হঠাৎ বিকট শব্দে ম্যানহোলের লোহার ঢাকনা উড়ে যায়। এ সময় বৃষ্টির মতো সুরকি এসে পড়ছিল শরীরে। শ্যামপুর থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন, ধারণা করা হচ্ছে দীর্ঘদিন পরিস্কার না করায়

সড়কের পাশের স্যুয়ারেজ লাইনে গ্যাস জমে ছিল। হয়তো কোনো পথচারী জ্বলন্ত সিগারেটের অংশ ফেলার পর বিস্ম্ফোরণ ঘটে। তার পরও বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।