খুলনায় প্রাণিসম্পদ অফিসে তালা দেওয়ার হুমকি আ'লীগ নেতার

প্রকাশ: ১৩ জুন ২০১৯

খুলনা ব্যুরো

খুলনা জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে তালা লাগানোর হুমকি দিয়েছেন স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতা। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় প্রাণিসম্পদ অফিসের সীমানাপ্রাচীরের নির্মাণকাজ চলাকালে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় কাজ বন্ধ করা না হলে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রাণনাশের হুমকিও দেওয়া হয়। এ ঘটনায় জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আবদুল হান্নান নগরীর সোনাডাঙ্গা থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।

অভিযুক্ত খাজা মইনউদ্দিন সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক।

জিডি সূত্রে জানা যায়, নগরীর পাওয়ার হাউস মোড়ে প্রাণিসম্পদ অফিসের সীমানাপ্রাচীর নির্মাণসহ অবকাঠামোগত উন্নয়নকাজ চলছে। অফিসের প্রবেশমুখের বাঁ পাশে খাজা নামের এক ব্যক্তি এর আগে অবৈধভাবে টিনশেডের আধাপাকা এক কক্ষবিশিষ্ট দোকান নির্মাণ করে ভাড়া দিয়েছেন। গত ১১ জুন সন্ধ্যায় সীমানাপ্রাচীরের কাজ চলার সময় খাজা সেখানে গিয়ে রাজমিস্ত্রি, সহকারীসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের গালাগাল করেন এবং মারতে উদ্যত হন। কাজ বন্ধ না করলে তাদের প্রাণনাশ এবং অফিসে তালা লাগিয়ে দেওয়ার হুমকি দেন।

এ ব্যাপারে জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আবদুল হান্নান বলেন, অফিসের জায়গার ভেতরে ওই ব্যক্তি দোকান তৈরি করেছেন। এখন সীমানাপ্রাচীর দিতে হলে ওই ঘর ভাঙতে হবে। আগেই তাকে বিষয়টি জানানো হলে তিনি ক্ষিপ্ত হন। কাজ শুরুর পর এ ঘটনা ঘটে। বিয়ষটি নিয়ে অফিসের সবাই আতঙ্কিত।

আওয়ামী লীগ নেতা খাজা মইনউদ্দিন বলেন, 'আমি দীর্ঘদিন ধরে ওই দোকান ভাড়া দিয়ে আসছি। প্রাণিসম্পদ অফিসাররা এখন আমার পেটে লাথি মারতে চায়। তাই তাদের কাজ বন্ধ করতে বলেছি। গালাগালি বা হুমকি দিইনি।' তিনি বলেন, 'বিয়ষটি আমি থানা আওয়ামী লীগ সভাপতিসহ অন্যদের জানিয়েছি। ওসি ফোন দিয়েছিলেন, তাকেও বুঝিয়ে বলেছি। ডিএলও অযথাই আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন।'