বিএনপি প্রার্থীর সংবাদ সম্মেলন

ইভিএম জায়েজ করার কৌশল নিয়েছে সরকার

প্রকাশ: ১৩ জুন ২০১৯

বগুড়া ব্যুরো

আগামীতে জাতীয় নির্বাচনে ইভিএমের অপরিহার্যতা প্রমাণ করতে সরকার বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আসন হিসেবে পরিচিত বগুড়া-৬ (সদর)

আসনে অবাধ নির্বাচনের কৌশল নিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি প্রার্থী গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ। তার দাবি, এজন্য উপনির্বাচনের আগে প্রশাসন ও পুলিশের আচরণেরও অনেক পরিবর্তন এসেছে। গতকাল বুধবার বিকেলে বগুড়া প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

আগামী ২৪ জুন বগুড়া-৬ আসনে উপনির্বাচনে বিএনপি থেকে ধানের শীষ প্রতীকে লড়বেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ। এ নির্বাচনে সরকারের ইভিএম ব্যবহারের পরিকল্পনার বিষয়ে তিনি বলেন, সারাবিশ্বে ইভিএম এখন বাতিল করা হচ্ছে। তার পরও নির্বাচন কমিশন থেকে বগুড়া-৬ আসনের নির্বাচনে সব কেন্দ্রে ইভিএমে ভোট গ্রহণের কথা ঘোষণা করেছে। কারণ সরকার ইভিএমকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাচ্ছে।

ইভিএমকে মানুষের নিয়ন্ত্রিত যন্ত্র উল্লেখ করে সিরাজ বলেন, এই মেশিনে ভোট নিতে ভোটারের লাইন লাগে না। ভোটার উপস্থিতির দরকার হয় না। কর্মী বাহিনীর প্রয়োজন হয় না। মারামারিও দরকার হয় না। তাই সরকার কৌশলে ইভিএম মেশিনের অপরিহার্যতা প্রমাণ করতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আসন হিসেবে পরিচিত বগুড়া-৬ আসনকেই বেছে নিয়েছে। আগামী ২৪ জুন অনুষ্ঠিত নির্বাচন সুষ্ঠু হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করে সিরাজ বলেন, আওয়ামী লীগ একটি কৌশলী দল। খালেদা জিয়ার আসনে ফেয়ার ভোট করে তারা ইভিএমকে জায়েজ করতে চায়। নির্বাচনের পর সরকার যাতে বলতে পারে খোদ খালেদা জিয়ার আসনে ইভিএম দিয়ে সুষ্ঠু ভোট হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির, বগুড়া জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম, ফজুলল বারী তালুকদার বেলাল, সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম বাদশা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন ও বিলুপ্ত ঘোষিত যুবদলের জেলা কমিটির সভাপতি সিপার আল বখতিয়ারসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।