আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার বিচার বার্ষিকী আজ

প্রকাশ: ১৯ জুন ২০১৯     আপডেট: ১৯ জুন ২০১৯

সমকাল প্রতিবেদক

ঐতিহাসিক আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার বিচার শুরুর ৫১তম বার্ষিকী আজ বুধবার। ১৯৬৮ সালের ১৮ জুন ঢাকার কুর্মিটোলা সেনানিবাসের সিগন্যাল মেসে স্থাপিত বিশেষ ট্রাইব্যুনালে এই মামলার শুনানি তথা আনুষ্ঠানিক বিচার শুরু হয়। আওয়ামী লীগপ্রধান শেখ মুজিবুর রহমানসহ ৩৫ জনকে আসামি করে এই বিচার শুরু হয়েছিল।

এর আগে পাকিস্তান সরকার ১৯৬৮ সালের জানুয়ারি মাসে শেখ মুজিবুর রহমানকে প্রধান আসামি করে সেনাবাহিনীর কয়েকজন কর্মরত ও প্রাক্তন সদস্য এবং ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করে। মামলার শিরোনাম ছিল, 'রাষ্ট্র বনাম শেখ মুজিবুর রহমান গং' যা পরে 'আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা' নামে পরিচিতি পায়। ঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থানের মুখে ১৯৬৯ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তান সরকার মামলাটি প্রত্যাহার এবং শেখ মুজিবসহ সব বন্দিকে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে বাধ্য হয়। ২৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে মামলায় অভিযুক্তদের গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে শেখ মুজিবকে 'বঙ্গবন্ধু' উপাধিতে ভূষিত করা হয়।

আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার বিচার বার্ষিকী উপলক্ষে আজ সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে 'ঐতিহাসিক আগরতলা মামলায় সাক্ষ্য প্রদান' শীর্ষক আলোচনা সভা করবে ঐতিহাসিক আগরতলা মামলা পরিষদ ও ৭১ ফাউন্ডেশন। সভায় প্রধান অতিথি থাকবেন ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া। সভাপতিত্ব করবেন এ মামলার অন্যতম অভিযুক্ত ও প্রাক্তন ডেপুটি স্পিকার কর্নেল (অব.) শওকত আলী। মামলার আসামিদের মধ্যে জীবিত অন্য চারজন ক্যাপ্টেন (অব.) নূর মোহাম্মদ বাবুল, কর্নেল (অব.) শামসুল আলম, সার্জেন্ট (অব.) আবদুল জলিল ও এবিএম খুরশিদও সভায় উপস্থিত থাকবেন।