রাঙামাটি শহরে কাপ্তাই লেকের ধারে পাকা ভবন নির্মাণের জন্য খনন করতে গিয়ে মাটিচাপায় তিন নির্মাণ শ্রমিক নিহত হয়েছেন। গতকাল রোববার শহরের রিজার্ভ বাজার সংলগ্ন রাঙামাটি মহিলা কলেজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- সেন্টু মিয়া (৩২), আনফুর আলী (৬০) ও পাপ্পু (১৭)। এ ঘটনায় আহত ওমর আলী (৩৫) ও সবুজ মিয়াকে (৩২) রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, দুপুরের দিকে ১০ থেকে ১২ জন শ্রমিক পারভিন আক্তার নামের এক স্কুলশিক্ষিকার পাকা ভবন নির্মাণের জন্য মাটি খনন করছিলেন।

এ সময় হঠাৎ করে মাটি ধসে পাঁচ শ্রমিক চাপা পড়ে যান। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। এ সময় সেন্টু মিয়া, আনফুর আলী ও পাপ্পুকে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। নিহত ও আহতদের বাড়ি সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায়। ঘটনার পর রাঙামাটি জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশীদসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ভবন নির্মাণকারী স্কুলশিক্ষিকা ঘটনার

পর পর গা-ঢাকা দিয়েছেন।

একটি সূত্র জানায়, গ্রীষ্ফ্ম মৌসুমে কাপ্তাই হ্রদে পানি কমে

যাওয়ার সুযোগে ওই শিক্ষিকা পাড় দখল করে অবৈধভাবে পাকা ভবন নির্মাণের চেষ্টা করছিলেন। পিলার বসনোর জন্য মাটি খনন করতে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশীদ জানান, কাপ্তাই লেকের পাড় ঘেঁষে ভবন নির্মাণ সম্পূর্ণভাবে অবৈধ। ইতিমধ্যে ভবনের মালিকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া এ ঘটনার জন্য একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৩ অক্টোবর রাঙামাটিতে মহিলা কলেজ এলাকায় দ্বিতল ভবনে ধসের ঘটনায় পাঁচজনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছিল। সেই সময়ে বাড়ির মালিকের বিরুদ্ধে মামলা হলেও তার কোনো শাস্তি হয়নি।

মন্তব্য করুন