চলে গেলেন অভিনেত্রী রুমা গুহঠাকুরতা

প্রকাশ: ০৪ জুন ২০১৯      

কলকাতা প্রতিনিধি

অভিনেত্রী, সঙ্গীতশিল্পী রুমা গুহঠাকুরতা আর নেই। গতকাল সোমবার ভোর ৬টার দিকে কলকাতার ৩৮ বালিগঞ্জ প্লেসের নিজ বাড়িতে ঘুমের মধ্যেই প্রয়াত হন তিনি। তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর। দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন এই শিল্পী।

রুমা গুহঠাকুরতা ছিলেন কালজয়ী সঙ্গীতশিল্পী কিশোর কুমারের প্রথম স্ত্রী। ১৯৫৮ সালে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন ক্যালকাটা ইয়ুথ কয়্যার। বাংলায় গণসঙ্গীত জনপ্রিয়তা লাভ করে ক্যালকাটা ইয়ুথ কয়্যারের হাত ধরেই। বাংলা চলচ্চিত্রে তার অভিনয়েও মুগ্ধ হয়েছেন দর্শক। ৮০তে আসিও না, অভিযান, গণশত্রুর মতো একাধিক জনপ্রিয় ছবিতে তার অভিনয় বাঙালি দর্শকের মনে চিরস্থায়ী জায়গা

করে নিয়েছে। সত্যজিৎ রায়, তপন সিংহ, তরুণ মজুমদারের মতো বাঘা বাঘা চিত্র পরিচালকদের থেকে অভিনয়ের জন্য প্রশংসাও কুড়িয়েছেন তিনি। একাধিক ছবিতে করেছেন প্লেব্যাক। বেশ কয়েকটি হিন্দি ছবিতেও অভিনয়ের জন্য প্রশংসিত হয়েছেন রুমা। তার অভিনীত শেষ ছবি মীরা নায়ার পরিচালিত 'দ্য নেমসেক' মুক্তি পায় ২০০৬ সালে।

১৯৩৪ সালে কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন রুমা। বাবা সত্যেন ঘোষ এবং মা সতী ঘোষ ছিলেন সংস্কৃতি জগতের মানুষ। ১৯৫১ সালে কিশোর কুমারের সঙ্গে বিয়ে হয় রুমার। তাদের সন্তান অমিত কুমার। ১৯৫৮ সালে বিচ্ছেদ হয়ে যায় তাদের। কিশোরের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর রুমার বিয়ে হয় অরূপ গুহঠাকুরতার সঙ্গে। রুমা ও অরূপের সন্তান গায়িকা শ্রমণা চক্রবর্তী।

প্রবীণ এই অভিনেত্রীর প্রয়াণে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টুইটারে তিনি লিখেছেন, 'রুমা গুহঠাকুরতার প্রয়াণে মনঃক্ষুণ্ণ। সিনেমা ও সঙ্গীত জগতে তার অবদান চিরকাল স্মরণীয় হয়ে থাকবে। পরিবার ও অনুরাগীদের গভীর সমবেদনা।'

বর্ষীয়ান অভিনেত্রী সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায় বলেন, সব সময় হাসিমুখে থাকতেন রুমা। সবার সঙ্গে খুব ভালো ব্যবহার করতেন।

সোমবার সন্ধ্যায় কলকাতার কেওড়াতলা মহাশ্মশানে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়। এতে অংশ নেন তার ছেলে অমিত কুমারসহ পরিবারের সদস্যরা। উপস্থিত ছিলেন কলকাতার সঙ্গীত জগতের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পক্ষ থেকে এদিন তার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়।