স্কুলছাত্রীকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

প্রকাশ: ০৯ জুন ২০১৯      

রাজবাড়ী প্রতিনিধি

রাজবাড়ীতে আপত্তিকর ছবি তুলে ব্ল্যাকমেইলের মাধ্যমে টাকা আদায় করতে না পেয়ে এক স্কুলছাত্রীকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে সদর উপজেলার পাঁচুরিয়া ইউনিয়ন এলাকায়। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে শিল্পী বেগম নামে এক নারীসহ অজ্ঞাতপরিচয় আরও চারজনের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী সদর থানায় মামলা করেছেন। শিল্পী একই উপজেলার পার্শ্ববর্তী খোলাবাড়িয়া গ্রামের জাহাঙ্গীর মিজির স্ত্রী।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ওই ছাত্রী স্থানীয় একটি বালিকা বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী। গত ১২ এপ্রিল স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার সময় অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজন লোক তাকে জোর করে রাস্তার পাশে জঙ্গলে নিয়ে যায় এবং ছুরির ভয় দেখিয়ে আপত্তিকর ছবি তোলে। সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে মেয়েটির কাছে দুই লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে শিল্পী বেগম। এরপর ৫ জুন বাড়ির পাশে মেয়েটির মাথায় সজোরে আঘাত করে অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তি। ওইদিনই স্থানীয়ভাবে তাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

মামলার এজাহারে মেয়েটির বাবা অভিযোগ করেন, সর্বশেষ গত ৬ জুন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তার মেয়ে বাড়ির বারান্দায় বসে জামরুল খাচ্ছিল। এ সময় অজ্ঞাতপরিচয় চারজন বোরকাপরা লোক মেয়েটির মুখ চেপে ধরে বাড়ির পেছনে একটি পাটক্ষেতে নিয়ে যায়। সেখানে ওড়না দিয়ে মেয়েটির হাত, পা ও মুখ বেঁধে গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময় মেয়ে মাটিতে গড়াগড়ি করে আগুন থেকে রক্ষা পায়। পরে মেয়ের গোঙানি শুনে তার মা গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। .

স্কুলছাত্রীর বাবা জানান, শিল্পী বেগমের সঙ্গে তার কোনো  শত্রুতা নেই। তাদের কাজ  মানুষকে ব্ল্যাকমেইল করে টাকা আদায় করা।

রাজবাড়ী সদর থানার ওসি স্বপন কুমার মজুমদার জানান, মামলার  এজাহারে চারটি ঘটনার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। পুলিশ স্কুলছাত্রীর পুড়ে যাওয়া কামিজ ও সালোয়ার জব্দ করেছে। আসামি শিল্পী বেগম পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে। রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজাউল করিম শনিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।