সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনা

যুক্তরাষ্ট্রে গ্রেফতার আশিকুলের জামিন নামঞ্জুর

প্রকাশ: ০৯ জুন ২০১৯      

সমকাল ডেস্ক

নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ারে হামলা পরিকল্পনার অভিযোগে গ্রেফতার বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আশিকুল আলমের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালতে তার বিরুদ্ধে হামলা পরিকল্পনার অংশ হিসেবে অবৈধভাবে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অভিযোগ আনা হয়েছে। আশিকুলের জামিন আবেদন নাকচ করে দিয়েছেন আদালত। খবর এপি ও রয়টার্সের।

টাইমস স্কয়ারে বন্দুক ও গ্রেনেড হামলা পরিকল্পনার অভিযোগে আশিকুলকে বৃহস্পতিবার গ্রেফতার করে যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসবাদবিরোধী পুলিশ। বেশ কিছুদিন ধরেই তাকে নজরদারিতে রেখেছিল গোয়েন্দারা। আশিকুলের বয়স ২২ বছর। যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিনকার্ডধারী আশিকুল জ্যাকসন হাইটসের বাসিন্দা। তার বাবা ব্যবসায়ী।

শুক্রবার ব্রুকলিনের ফেডারেল আদালতে আশিকুলকে হাজির করা হয়। আইনজীবী জেমস ডারো তার মক্কেলকে দুই লাখ ডলার মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার আবেদন জানান। অনুরোধ করেন কারাগারে না রেখে তাকে গৃহবন্দি করে পর্যবেক্ষণে রাখার জন্য। ডারো আরও জানান, আশিকুল তার মা-বাবার সঙ্গে থাকে এবং তারা বন্ডে স্বাক্ষর করার জন্য প্রস্তুত। তবে সংক্ষিপ্ত শুনানির পর বিচারপতি চেরিল পোলাক আশিকুলকে জামিন না দিয়ে কারাবন্দি রাখার নির্দেশ দেন। ২১ জুন আবারও তাকে আদালতে হাজির করা হবে।

আদালতে আশিকুলের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগে বলা হয়েছে, ছদ্মবেশী আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের কাছ থেকে বৃহস্পতিবার সিরিয়াল নম্বর মুছে ফেলা দুটি গল্গক ১৯ নাইন এমএম সেমি-অটোমেটিক পিস্তল নেয় সে। এর পরই তাকে গ্রেফতার করা হয়। ছদ্মবেশী এফবিআই এজেন্টের সঙ্গে আলোচনায় আশিকুল নিউইয়র্কে ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বরের সন্ত্রাসী হামলা এবং জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের প্রতি সমর্থন জানায়। ওসামা বিন লাদেনেরও প্রশংসা করে সে। বিস্টেম্ফারক ভেস্ট ব্যবহার করে হামলা চালানোর বিষয়েও আলোচনা করে আশিকুল।

যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি রিচার্ড ডোনোঘুয়ে এক বিবৃতিতে জানান, আশিকুল আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের হত্যা ও টাইমস স্কয়ারে  বেসামরিক ব্যক্তিদের ওপর হামলা পরিকল্পনার অংশ হিসেবে অবৈধ অস্ত্র কিনেছিল। ওয়াশিংটনের কোনো ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তাকে হত্যার পরিকল্পনা ছিল তার। তবে আশিকুলের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ সত্ত্বেও তাকে সন্ত্রাসবাদের মামলায় জড়ানো হচ্ছে না। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র রাখার অভিযোগ আনা হয়েছে।

১১ বছরে গ্রেফতার ৫ বাংলাদেশি :সমকালের নিউইয়র্ক প্রতিনিধি জানান, গত ১১ বছরে আশিকুলসহ মোট পাঁচ বাংলাদেশি যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসবাদ সংক্রান্ত মামলায় গ্রেফতার কিংবা দোষী সাব্যস্ত হয়েছে। তাদের চারজনই ছাত্র।

২০১৭ সালের ১১ ডিসেম্বর নিউইয়র্কের ম্যানহাটানে ব্যস্ততম পোর্ট অথরিটি বাস টার্মিনালে আত্মঘাতী বিস্টেম্ফারণের পর আহত অবস্থায় বাংলাদেশি আকায়েদ উল্লাহকে (২৭) গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের ৬ অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। তার শাস্তি ঘোষণা অপেক্ষমাণ। ২০১২ সালের অক্টোবরে ম্যানহাটানের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক বোমা মেরে উড়িয়ে দেওয়ার ষড়যন্ত্রে গ্রেফতার বাংলাদেশি শিক্ষার্থী কাজী মোহাম্মদ রেজোয়ানুল আহসান নাফিজের ৩০ বছর জেল হয়। স্টুডেন্ট ভিসায় পড়তে এসেছিল সে।

২০০৭ সালে জর্জিয়ার আটলান্টা সিটিতে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এহসানুল সিফা সাদেকীকে (২৭) যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসী হামলা চালানোর ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগে ১৭ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসী হামলা পরিকল্পনার অভিযোগে ২০০৮ সালে নিউইয়র্কের আলবেনিতে বসবাসরত এবং মসজিদ আস-সালামের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ মোশারফ হোসেনকে ১৫ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।