অ্যাম্বুলেন্সে রোগীর সঙ্গে ইয়াবাও

প্রকাশ: ০৯ জুন ২০১৯      

চট্টগ্রাম ব্যুরো

সাইরেন বাজিয়ে আসছিল অ্যাম্বুলেন্সটি। গুরুতর অসুস্থ রোগী নিয়ে আসা অ্যাম্বুলেন্সটিকে জায়গা করে দিচ্ছিল রাস্তার অন্য যানবাহনগুলো। তবে পুলিশের কাছে তথ্য ছিল সেই অ্যাম্বুলেন্সে শুধু রোগী নয়, রয়েছে ইয়াবাও। এ তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে চট্টগ্রাম নগরীর শাহ আমানত সেতুর দক্ষিণ পাড়ে অ্যাম্বুলেন্সটির গতিরোধ করে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। এরপর অ্যাম্বুলেন্সেরদুই মালিককে আটক রেখে পুলিশের একজন এএসআই নিজেই অ্যাম্বুলেন্স চালিয়ে রোগীকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে পৌঁছে দেন। পরে তল্লাশির সময় রোগীর সিটের নিচে মিলেছে আট হাজার পিস ইয়াবা।

এ ঘটনায় আটক দু'জন হলো- নোয়াখালী জেলার সুধারাম উপজেলার মো. ফারুক ও মো. দুলাল। অ্যাম্বুলেন্সে রোগী দেখলে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সন্দেহ করবে না মনে করে ইয়াবা নিয়ে আসছিল তারা।

নগর গোয়েন্দো পুলিশের এএসআই শন্তু শর্মা জানান, ফারুক ও দুলাল বৃহস্পতিবার সকালে অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে নোয়াখালী থেকে কক্সবাজার যান। সেখান থেকে তারা ইয়াবা সংগ্রহ করেন। রাতে চকরিয়ার জমজম হাসপাতাল থেকে আনুমানিক ৬৫ বছর বয়সী গুরুতর অসুস্থ এক রোগীকে নিয়ে তারা চমেক হাসপাতালে যাচ্ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অ্যাম্বুলেন্সটি থামানো হয়। পরে অ্যাম্বুলেন্সটিতে তল্লাশি চালিয়ে রোগীর সিটের নিচ থেকে পাঁচটি প্যাকেটে ভর্তি আট হাজার পিস ইয়াবা পাওয়া যায়। এসব ইয়াবা কক্সবাজার থেকে নোয়াখালী নেওয়া হচ্ছিল।