সংরক্ষিত আসনের এমপি রুশেমা বেগমের ইন্তেকাল

প্রকাশ: ১১ জুলাই ২০১৯

সমকাল প্রতিবেদক ও ফরিদপুর অফিস

একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য এবং পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য রুশেমা বেগম (৮৫) আর নেই। মঙ্গলবার রাত ১১টা ৩৫ মিনিটে ফরিদপুর হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ... রাজিউন)।

রুশেমা ইমাম নামে অধিক পরিচিত এই এমপির মৃত্যুতে রাজনৈতিকসহ সব মহলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

রুশেমা বেগম দুই ছেলে, এক মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন ও বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। গতকাল বুধবার বাদ আসর ফরিদপুর পুলিশ লাইন্স মাঠে মরহুমার জানাজা শেষে ফরিদপুর শহরের

কমলাপুরের ইমামবাগের পারিবারিক কবরস্থানে স্বামী ইমাম উদ্দিন আহমাদের কবরের পাশে তাকে দাফন করা হয়।

জানাজায় ফরিদপুর-৩ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য এবং স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ফরিদপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লোকমান হোসেন মৃধা, ফরিদপুরের পুলিশ সুপার জাকির হোসেন খান, যুবলীগের কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য ফারুক হোসেন, ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান, শামীম হকসহ গণ্যমান্য ব্যক্তি ও সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেন। জানাজার মাঠে উপস্থিত ছিলেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার।

এর আগে বিকেলে রুশেমা বেগমের মরদেহ তার শহরের কমলাপুরের বাসায় নিয়ে আসা হলে আত্মীয়স্বজন এবং রাজনৈতিক নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের হাজারো মানুষের উপস্থিতিতে বেদনাবিধুর পরিবেশের সৃষ্টি হয়। এ সময় রাজনৈতিক ব্যক্তি, সামাজিক-সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষ থেকে মরদেহে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে তার প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।

ব্যক্তিজীবনে রুশেমা বেগম (হাসি) ফরিদপুরের ঈশান মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। ওই বিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। আওয়ামী লীগের মনোনয়নে ফরিদপুর জেলার সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়ে চলতি বছরের ২০ ফেব্রুয়ারি শপথ নেন তিনি।

তার স্বামী ইমামউদ্দিন আহমাদ ভাষাসংগ্রামী, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, সাবেক সংসদ সদস্য এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর ছিলেন। ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দীর্ঘদিন সফলতার সঙ্গে দলকে নেতৃত্ব দেন তিনি। ২০০৬ সালে ফরিদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে ওই বছরের ১২ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

রুশেমা বেগমের মৃত্যুতে সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া, চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটন, ফরিদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, সমকাল প্রকাশক ও এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি এ. কে. আজাদ, সমকালের উপ-সম্পাদক আবু সাঈদ খান, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের (বাপাউবো) মহাপরিচালক মাহফুজুর রহমান, ঢাকাস্থ ফরিদপুর জার্নালিস্ট ফাউন্ডেশনের (এফজেএফ) সভাপতি লায়েকুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক অমরেশ রায় প্রমুখ শোক জানিয়েছেন।